বাংলাদেশের সেরা দশটি মোবাইল অ্যাপস

Share

প্রযুক্তির উতকর্ষ বাড়ছে প্রতিদিন। অন্যান্য প্রযুক্তির পাশাপাশি বাংলাদেশে বহুল পরিমানে বাড়ছে মোবাইল প্রযুক্তি বিশেষ করে মুঠোফোনের ব্যবহার। সাধারণের হাতে হাতে এখন দেখা যায় ছোটখাট থেকে শুরু করে দামী ব্র্যান্ডের মুঠোফোন। তরুণদের জন্য মুঠোফোন এখন শুধু প্রয়োজনীয় নয়, বরং তারুন্যের বিশেষ স্টাইল হয়ে দাঁড়িয়েছে। অবশ্য এই দৃশ্য শুধু বাংলাদেশে নয়, বিশ্বের অন্যান্য দেশরে জন্যও একই রকম। এখন সব খানে মানুষ পছন্দ করছে নানান ব্র্যান্ডের ফোন। অ্যাপলের আইফোন, নোকিয়ার সর্বশেষ মডেল, এইচ টিসি,  সনি, ব্ল্যাকবেরি সহ নানা ব্রান্ড তো সবার হাতে হাতেই।

তবে ব্র্যান্ড যেটাই হোক না কেন ব্যবহারকারীরা এখন চলতে চান বিশ্বের   সাথে তাল মিলিয়ে চলতে। হতে পারে সেটা স্যামসাং এর লেটেস্ট মডেল, কিন্তু তাতে অবশ্যই অ্যান্ড্রয়েড এর সব সুবিধা থাকতে হবে। বাংলাদেশের তরুণরা এখন চান তাদের মুঠোফোন বা ট্যবলেটে অবশ্যই নতুন নতুন সব অ্যপস থাকতে হবে। কি গেমস এলো, নতুন কি কি মিডিয়া থাকছে, এসব আছে কিনা সেটা দেখেই মুঠোফোন পছন্দ করছেন তারা। এসবরে মাধ্যমে মুঠোফোনের যে বিপ্লব সাধন হয়েছে  তার পুরো সুবিধা নিতে চান তারা।

মুঠোফোনের উন্নয়নের জন্য যারা কাজ করছেন তারা কিন্তু বিষয়টা বেশ গুরুত্বের সাথে নিয়েছেন। এখনই বাংলাদেশে  যেসব ফোন পাওয়া যায়, সেসব ফোনগুলোতে ফেসবুক,  টুইটার, ইউ টিউব  এর মত অ্যাপসগুলো পাওয়া যায়। তবে এখন নতুন নতুন যেসব অ্যাপ তৈরী হচ্ছে সেখানে নির্মাতারা খেয়াল রাখছেন যেন জায়গা আর মানুষের প্রয়োজনীয় দিকটা বেশি প্রাধান্য পায়। প্রতিদিন প্রয়োজন এমন সব অ্যাপস তৈরীর দিকেই খেয়াল রাখছেন তারা। এতে ব্যবহারকারীরা মুঠোফোন প্রযুক্তির  পুর্ণ সুবিধাটা পাবেন।

এখন জেনে নেয়া যাক  বাংলাদেশে এখন কোন অ্যাপসগুলো চলছে। তবে এই অ্যাপসগুলোই শেষ নয়। যে হারে নতুন নতুন অ্যাপস তৈরী হচ্ছে আর মানুষের নানান ধরনের প্রয়োজন বাড়ছে তাতে বর্তমানে জনপ্রিয় অ্যাপসগুলো এক সময় পুরনো মনে হতেই পারে। এই বাস্তবতা অবশ্য বাংলাদেশে মুঠোফোনের যে বহুবিধ ব্যবহার, সেদিকে ইংগিত করছে।

১.ফ্রিং-

এই  অ্যাপটি প্রায় স্কাইপ এর মত।  এটা এখন মোবাইলে ফ্রি পাওয়া যায়। ভিডিও কল, ভিডিও চ্যাট, ভয়েস চ্যাট এবং এসএমএস পাঠানো যায় এই  অ্যাপসটি দিয়ে। প্রায় সব স্মার্ট ফোন এবং ট্যাবলেটে এই অ্যপসটি ব্যবহার করা যায়। এটি বাংলাদেশীদের জন্য সব ধরণের যোগাযোগের বিশেষ সুবিধা করে দিয়েছে। মুঠোফোনে বার্তা পাঠানোর সব ব্যবস্থাই এই অ্যাপসটিতে পাওয়া যায়। ফ্রিং অ্যাপসটির সবচেয়ে বড় সুবিধা এক সাথে চারজন চ্যাট করা যায়। তবে এটার জন্য কিছু অর্থও গুনতে হবে।

২.রিদমিক কিবোর্ড-

নানান ভাষায় টাইপ করা, অন্তত বাংলা আর ইংরেজি তো নিত্য দিনের প্রয়োজন। ফ্রি এই অ্যপটি দিয়ে বাংলাদেশের মানুষের জন্য বেশ উপকারী। সহজ এবং প্রাঞ্জলভাবে লিখতে পারবেন বাংলা আর ইংরেজি। চেষ্টা করে দেখতে পারেন।

৩.সুপ্রভাত বাংলাদেশ-

বাংলায় প্রতিদিন পত্রিকা পড়েন। একবার এই সাইটে আরেকবার ঐ সাইটে।  একটা দেখে আরেকটা পত্রিকা থেকে আরেকটু চোখ বুলিয়ে আসা দরকার। মুঠোফোনে এই কাজটি করা বেশ ঝামেলার। তবে সুপ্রভাত আসলেই আপনাকে সেই ঝামেলা থেকে মুক্ত করে দিতে পারে। আবার অনেক পত্রিকায় কিছু বিশেষ সংবাদ থাকে যা শুধুমাত্র পাঠকরা দিনের পত্রিকা কিনে পড়তে পারেন। সুপ্রভাত একসাথে সব এক্সক্লুসিভ খবরগুলোও পাওয়া যাবে। সেই সাথে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম যেমন ফেসবুক বা টুইটারেও শেয়ার করা যাবে খবর বা যেকোন ইন্টারেস্টিং বিষয়।

৪.দেশী টিভি-

পথ  চলতে একটু টেলিভিশন দেখে নিতে চান। প্রিয় কোন অনুষ্ঠান। প্রি এই অ্যপসটি ডাউনলোড করে নিন আপনার স্মার্ট ফোনে। লাইভ টেলিভিশন দেখতে পারবেন। দেশের এবং বাইরের চ্যানেলগুলো দেখা যাবে এই অ্যাপসটি দিয়ে। তবে কতগুলো চ্যানেল আপনি দেখতে পারবেন তা নির্ভর করবে দুটো বিষয়ের উপর। প্রথমত আপনার পছন্দের সবগুলো চ্যানেল মোবাইলে রেন্ডার হতে পারে এমন সুবিধা ন্ওা থাকতে পারে। আর দ্বিতীয়টা হলো আপনার মুঠোফোন ফ্লাশ প্লেয়ার সাপোর্টেড হতে হবে।  ফ্লাশ প্লেয়ার অ্যাপটিও ফ্রি পাওয়া যায়।

৫.স্মার্ট ড্রয়েড বাংলাদেশ ওয়েদার অ্যাপ-

একেবারে আধুনিক আবহ্ওায়া বিষয়ক অ্যাপ এটি। আবহাওয়ার সব খবরাখবর পাবেন এটাতে। দেশের বড় বড় শহরগুলোর আবহাওয়ার সর্বশেষ জানা যাবে এখান থেকে। বৃষ্টির পুর্বাভাস,রাডার এবং দশ দিনের আবহাওয়ার পুর্বাভাস পেতে এই অ্যাপটি এক কথায় অসাধারণ।

৬.বাংলা রাশিফল-

এটাও ফ্রি লাইফ স্টাইল অ্যাপ। মজার ব্যাপার হলো এটা বাংলাদেশীদের কাছে খুব দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। এটা অবশ্য প্রথমদিকে কিছুটা বিনোদনধর্মী ছিল । এখন প্রতিদিনকার পাশাপাশি সপ্তাহ, মাস এবং বছরব্যাপী রাশি ফল দেখা যায়। এখন প্রতিদিন আপডেট করা হয়। রাশিফলগুলো নির্বাচন এবং লেখার কাজটি করেন দেশের সেরা রাশিফল বিশেষজ্ঞরা।

৭.সিঙ্গেলস অ্যারাউন্ড মি-

মনের মত সঙ্গী খোঁজা! কাজটার মধ্যেই একটা রোমাঞ্চ রোমাঞ্চ অনুভুতি কাজ করতেই পারে। এই অ্যাপটিও দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। উপযুক্ত মানুষেরাই মুলত এটা ব্যবহার করছেন। খুঁজছেন পছন্দের মানুষ। এই অ্যাপসটি ব্যবহার করে একই রকম অভিরুচির, কাছাকাছি এলাকায় থাকেন এরকম মানুষেরা দ্রুত সম চিন্তার মানুষের খোঁজ পেতে পারেন ।  অ্যাপসটি নিরাপদ এবং  সহজেই ব্যবহার করা যায়।

৮.ট্রেনের সময়সুচি-

বাংলাদেশ  ট্রেন স্কেডিউল নামের অ্যাপসটি ব্যবহার সহজে পাওয়া যাবে ট্রেনের সময়সুচী। মাঝে মাঝে ট্রেনের সময়সুচীর যে পরিবর্তন হয় তাও আপডেটেড থাকবে এই অ্যাপসে। বাংলাদেশ রেলওয়ে পুর্ব ও পশ্চিমাঞ্চল এই দুই ভাগে সময় সুচী ভাগ করে নেয়। সহজে জেনে যাবেন নিকস্থ রেল স্টেশনের ঠিকানা। নয়টার ট্রেন কয়টায় ছাড়ে এই  ঝক্কি ঝামেলা থেকে  বেঁচে যাবার জন্য এই অ্যাপসটি যে অনেক কাজের, তাতে সন্দেহ নেই।

৯.বাংলাদেশ রেডিও-

স্মার্ট ফোনের ফ্রি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস। সহজে শুনতে পাবেন রেডিওর অনুষ্ঠান। স্ট্রিমিংও চমতকার। বড় সুবিধা হলো আপনার পছন্দ অনুযায়ী রেডিও তালিকা করে নিতে পারবেন। আবার রেডিওর পুরনো অনুষ্ঠান শুনতে পাবেন। পথে চলছেন, কেন মিস করবেন সর্বশেষ সংবাদ বা গান শোনার সুযোগ। খেলাধুলায় আপনি বেশ আগ্রহী, জেনে নিতে চান প্রিয় তারকার খবর, মন্দ কি একবার অ্যাপসটা ওপেন করলেন!

১০. অ্যান্ড্রয়েড বাংলাদেশ-

এই অ্যাপসটি হলো একের ভিতর অনেক কিছু। বাংলাদেশে স্মার্ট ফোন ব্যবহারকারীদের জন্য এই অ্যাপসটি দরকারীও বটে। বাংলাদেশের জনপ্রিয় সব বিষয়ই পাওয়া যাবে অ্যাপসটি ব্যবহার করে।   মুলত লাইফ স্টাইল অ্যাপ এটি। জনপ্রিয় অ্যপস ফেসবুক ব্যবহার করা যাবে এখান থেকে। অনলাইনে কেনাকাটার জন্যও ব্যবহার করতে পারবেন। এক কথায় এটি বাংলাদেশকে খোজার জন্য অতি প্রয়োজনীয় অ্যাপস।

প্রতিদিন যোগ হচ্ছে নতুন নতুন অ্যাপস। আপনিও সহজে খুঁজে পেতে পারেন আপনার পছন্দের এবং প্রয়োজনীয় অ্যাপটি। শুধু বাংলাদেশ সম্পর্কিত অ্যাপস পাওয়া যায় অন্তত ১২০০’র বেশি। আবার এলাকা ভিত্তিক অ্যাপসও তৈরী হচ্ছে নিয়মিত। সব প্রয়োজনীয় অ্যপসগুলোকে আপনার স্মার্ট ফোন বা ট্যাবলেটের অ্যাপস স্যুইটে একসাথে রাখতে পারে। এগুলোকে আবার আপনার প্রয়োজনমত কাস্টোমাইজ করে নিতে পারবেন।

সাবস্ক্রাইব করুন

No spam guarantee.

Comments

comments