বাংলাদেশে অনলাইন মার্কেটপ্লেসে মোটরবাইকের বাজার বাড়ছে

Share

রাজধানীর মিরপুরে বসবাস করেন বেসরকারি বিশ্বদ্যিালয়ের ছাত্র রাহুল। ভয়াবহ ট্রাফিক জামের কারণে প্রায় প্রতিদিনই তাকে দেরীতে শ্রেণীকক্ষে উপস্থিত হতে হতো। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে তিনি একটি মোটরবাইক কেনার চিন্তা করলেন। কিন্তু ইচ্ছা থাকলেও নতুন বাইক কেনাটা সাধ্যের ভেতর ছিল না। এ সময় তার চাচাতো ভাই তাকে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় মার্কেটপ্লেস বিক্রয় ডট কম’এ সার্চ করার পরামর্শ দিলেন এবং খুব দ্রুত তিনি তার সাধ্যের ভেতর একটি ব্যবহৃত মোটরবাইক খুঁজে পেলেন।

বাংলাদেশের অনেকের জন্য মোটরবাইক হচ্ছে ক্রয়-ক্ষমতার ভেতর উপযুক্ত ব্যক্তিগত পরিবহন। দেশে বর্তমানে ১১ লাখেরও বেশি রেজিষ্ট্রেশন করা মোটরবাইক রয়েছে এবং এর বাইরেও একটি ক্রমবর্ধমান জনগোষ্ঠী রয়েছে যারা মোটরবাইককে যানযটের নগরে সহজ সাধ্য যোগাযোগ উপযোগী পরিবহন হিসাবে দেখেন। এমনকি গ্রামাঞ্চলের অন্যান্য যান চলাচলের অনুপযোগী কাঁচা রাস্তা-ঘাটে অনেকের জন্য মোটরবাইকই সবচেয়ে উপযোগি যাতায়াত মাধ্যম। এ ছাড়া বৈদেশিক আয় বাড়ার ফলে শহরগুলোর বাইরেও মোটরবাইক বিক্রির হার অনেক বেড়েছে।

by_city_bangla

স্বাভাবিকভাবেই, মানুষের আয় এবং ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ার প্রেক্ষাপটে ঢাকা শহরে চলাচলকারী মোটরবাইকের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। এটি সারা দেশের মোট মোটরবাইক ব্যবহ্রাকারীর ৩৩ শতাংশ। কিন্তু শহর অঞ্চলের বাইরে ২৪ শতাংশ মোটরবাইক চলে যা থেকে বোঝা যায় গ্রামাঞ্চলে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মোটরবাইকের চাহিদা রয়েছে।

top5brands_bangla

বিক্রয় ডট কমে বিক্রি হওয়া বাইকের মধ্যে জনপ্রিয় ব্র্যান্ড ভারতের পরিবহন প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান বাজাজ, যা মোট বাইকের ২৯ শতাংশ। এরপরেই রয়েছে হিরো, ওয়াল্টন, ইয়ামাহা এবং টিভিএস। আরো ভালো ব্র্যান্ড যেমন সুজুকি’র অবস্থান এক্ষেত্রে শীর্ষ পাঁচের ভেতর নেই, যা থেকে বোঝা যায় যে বাংলাদেশের ক্রেতারা দামের দিক থেকে সাশ্রয়ী ব্র্যান্ডের প্রতি বেশি আকৃষ্ট।

by_mileage_bangla

অনলাইন ক্লাসিফাইড সাইটগুলোতে ৩০ হাজার থেকে ৬০ হাজার কিলোমিটার মাইলেজ সম্পন্ন মোটরবাইকগুলোই সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। ৪৬ শতাংশ মোটরবাইক রয়েছে এই রেঞ্জের মাইলেজের ভেতর, যা থেকে বোঝা যায় যে একজন ব্যবহারকারী ব্যবহারের কয়েক বছর পরই তার বাইকটি বিক্রি করে দেন। এটি সাাধারণভাবে মোটরবাইকের হাতবদল প্রবণতারই বহিঃপ্রকাশ। এটাও বোঝা যায় যে, তরুণ প্রজন্ম নিত্য নতুন মডেলের বাইক পছন্দ করে এবং এজন্য কয়েক বছর পর পরই বাইকটি পরিবর্তন করে।

prices_bangla

বিক্রয় ডট কম’এ প্রকাশিত বিজ্ঞাপন থকে দেখা যায়, এখানে ১৫ হাজার থেকে শুরু করে পাঁচ লাখ টাকা মূল্যের বাইক রয়েছে। কিন্তু সবচেয়ে বেশি বাইক রয়েছে এক লাখ থেকে দেড় লাখ টাকার ভিতরে, যা মোট বিজ্ঞাপনের ৩৩ শতাংশ। ৫০ হাজার টাকা থেকে এক লাখ টাকার বাইক রয়েছে দ্বিতীয় অবস্থানে, যা দাড়ায় ২৭ শতাংশে। এ থেকে বোঝা যায় যে বাংলাদেশের ক্রেতারা বাইকের মূল্যের ব্যাপারে সচেতন এবং খুব কমই দেড় লাখ টাকার বেশি মূল্যের বাইক কিনেন।

সাবস্ক্রাইব করুন

No spam guarantee.

Comments

comments