কীভাবে সাশ্রয়ী মূল্যে বাংলাদেশে বাণিজ্যিক সম্পত্তি খুঁজবেন

Share

সম্প্রতি,আপনি ভেবে দেখলেন যে আপনার ব্যাবসার জন্য নতুন জায়গার প্রয়োজন। ব্যবসার জন্য বর্তমান স্থানটি আপনার পছন্দ হচ্ছে না বা আপনার ব্যাবসা ক্রমশ বড় হচ্ছে, যে কারণেই হোক না কেনো,সাশ্রয়ী মূল্যে একটি জায়গা খুঁজে পাওয়া সবসময়ই আপনার তালিকার শীর্ষে থাকবে। এই পরামর্শগুলো কম দামে ও আপনার চাহিদা অনুযায়ী সম্পত্তি ক্রয় করতে সাহায্য করবে।

আপনার সামর্থ্য কতটুকু তা ঠিক করুন

একেক জন ব্যাবসায়ীর কাছে,“সাশ্রয়ী” শব্দটির অর্থ একেক রকম, এবং আপনার প্রতিষ্ঠানের জন্য এর প্রভাব কতটুকু তা আপনাকেই নির্ধারণ করতে হবে। আপনি আপনার বাজেট পরিকল্পনাকারী বা ফিন্যান্সিয়াল টিমের সাথে বসুন এবং জায়গাটির জন্য ডাউনপেমেন্ট বা সিকিউরিটি ডিপোজিট অথবা মাসিক কিস্তিবাবদ কতো খরচ করা সম্ভব হবে তা নিয়ে আলোচনা করুন। অতিরিক্ত অর্থনৈতিক দায় আপনার ব্যাবসার জন্য ক্ষতির কারণ হতে পারে,তাই প্রাক্কলনের ক্ষেত্রে আপনাকে রক্ষণশীল হতে হবে, বিশেষ করে যখন আপনি টাকা বাঁচানোর কথা ভাববেন।

আপনার প্রতিনিধির সাথে আন্তরিক হোন

আপনি দোকান বা ক্যাটারিং, যে জন্যই জায়গা খুঁজুন না কেন, এসব ক্ষেত্রে আবাসন খাতের কোনো প্রতিনিধি নিয়ে কাজ করা ভালো। প্রতিনিধি আপনাকে শুধু অনেক ধরণের সম্পত্তিরই খোঁজ দিতে পারবে না, বরং সে আপনার বাজেটের মধ্যেও সম্পত্তি খুঁজে দিতে পারবে। প্রতিনিধির সাথে কাজ করার শুরুতে আপনি কতো টাকা খরচ করতে চাচ্ছেন সে নিয়ে টালবাহানা না করাই ভালো। যেহেতু আপনি সাশ্রয়ী এবং বাজেটের আওতার মধ্যে দামের কথা আগেই ঠিক করে রেখেছেন, তাই শুরু থেকেই তাঁর সাথে খোলামেলা হোন।

জায়গা ভাড়া নেয়ার কথা ভাবতে পারেন

বাণিজ্যিক সম্পত্তি কিনতে পারা সবসময়ই লোভনীয়। এর মালিক হলে যে কোনো সময় আপনি আপনার ইচ্ছা অনুযায়ী তা সাজাতে পারবেন, এবং সমান্য পরিবর্তনের জন্য প্রতিবার আপনাকে অনুমতি নিতে হবে না। তা সত্ত্বেও, এর জন্য আপনাকে শুরুতেই অনেক বেশি পরিমাণ অর্থ খরচ করতে হবে যেখানে আপনার বিনিয়োগ দীর্ঘমেয়াদী নাও হতে পারে।

সম্পত্তির অবস্থানের কথা চিন্তা করুন

আপনি যখন একটি বাড়ি কিনবেন তখন আপনি জানেন সঠিক স্থান নির্ধারণ করা কতটা গুরুত্বপূর্ণ। কেননা আপনি চাইলেই সহজে স্থান পরিবর্তন করতে পারবেন না। আপনি হয়তো জানেন না যে, আপনার ব্যাবসার জন্য নতুন জায়গা খোঁজার সময় সঠিক স্থানের কথা মাথায় রাখতে হবে। মনে করুন,আপনি এমন একটি এলাকায় ব্যাবসার সম্পত্তি কিনেছেন যেখানে অপরাধ সংঘটিত হওয়ার হার অনেক বেশি। তাতে যে শুধু আপনার মূল্যবান জিনিসপত্র চুরি হতে পারে শুধু তাই নয় বরং আপনি আপনার ক্রেতাও হারাবেন, কারণ তারা আপনার দোকানে যেতে ভয় পাবে।

আপনার কী দরকার তা ঠিক করুন

বর্তমানে আবাসন বাজারে সর্বাধুনিক বিল্ডিং দেখে আপনি প্রলুব্ধ হতে পারেন। সেই একই ধরণের প্রলোভন কাজ করতে পারে অসাধারণ কোনো জায়গা দেখলে। দেখতে অফিস নয় বরং প্রাসাদের মত জায়গায় কাজ করার কিছু চমকদার ব্যাপার থাকতে পারে, কিন্তু আপনাকে এটাও ভাবতে হবে আপনার আসলে কী প্রয়োজন। বাজেটের ব্যাপারে রক্ষণশীল হলে আপনি হয়তো আপনার ইচ্ছেমতো সকল সুযোগ-সুবিধা পাবেন না, কিন্তু আপনার চাহিদা অনুযায়ী সবকিছু আছে এমন সম্পত্তি খুঁজে পেতে আপনি কাজ করতে পারেন।

ইন্টারনেটের গুরুত্ব

আপনার ব্যাবসা বড় হতে থাকলে আপনি আপনার ব্যাবসার একাংশ ইন্টারনেটে স্থানান্তরিত করতে পারেন। তাতে, আপনার যে সকল ক্রেতা সশরীরে আপনার দোকানে আসতো তাঁদেরকে আপনি ভার্চুয়াল ক্রেতায় পরিণত করতে পারবেন। যখন দেখবেন আপনার প্রতিষ্ঠান এই দিকেই এগোচ্ছে, তখন আপনি দ্বিতীয়বার ভাববেন যে আপনার আসলেই এত বড় জায়গার প্রয়োজন আছে কিনা। কিছু কিছু বিষয় পরিহার করে আপনি আপনার খরচ কমাতে পারেন।

তৈরি সম্পত্তি

ধরুন আপনি আপনার রেস্টুরেন্টের জন্য একটি নতুন জায়গা খুঁজছেন। এই অবস্থায় আপনার এমন জায়গা কেনা ঠিক হবে না যা এর আগে আইন সংশ্লিষ্ট অফিস ছিল, বিশেষ করে যখন আপনি বাজেটের কথা ভাবছেন। জায়গাটি আপনার কাজের জন্য প্রস্তুত নয়, এবং আপনাকে জায়গার দাম দেওয়ার পরও আপনাকে অনেক সরঞ্জাম কিনতে হবে। আপনাকে এমন জায়গা খুঁজে বের করতে হবে যেখানে আগে থেকেই আপনার দরকারি অনেক সুযোগ-সুবিধা রয়েছে।

তাড়াহুড়া করবেন না,সময় নিন

যদি আপনার মনে হয় ভবিষ্যতে আপনার প্রতিষ্ঠানের স্থান পরিবর্তন করতে হবে, তবে এর পরিকল্পনা শুরু করতে দেরি করবেন না। যখন আপনি সম্পত্তি ভাড়া নেওয়ার চাপে রয়েছেন এবং আপনাকে খুব তাড়াতাড়িই স্থান পরিবর্তন করতে হবে, তখন আপনার হাতে বাজেট নিয়ে খুব বেশি বিকল্প থাকবে না। পরিকল্পনা করুন এবং সেই অনুযায়ী এগিয়ে যান। আপনার বাজেট কী হবে তা ঠিক করুন এবং সেই বাজেটের বেশি খরচ করবেন না বলে ঠিক করুন, এবং এটা বুঝতে চেষ্টা করুন যে আপনার লক্ষ্য অর্জনের জন্য কাজ করতে হবে।

দর কষাকষি করুন

এটা আপনার প্রথমবার হোক বা আপনি অনেক অভিজ্ঞতাসম্পন্ন হোন, আপনি নিশ্চয়ই জানেন আপনাকে দর কষাকষি করতে হবে। কোনো দাম শুনে প্রথমেই রাজি হয়ে যাবেন না। দাম আপনার বাজেটের মধ্যে হলেও, বিক্রেতাকে জিজ্ঞেস করুন তিনি দাম নিয়ে কথা বলতে রাজি আছেন কি না? আপনার ব্যাবসায় কোনো সমস্যা দেখা দিলে বা সামান্য পরিবর্তন আনতে এই অতিরিক্ত টাকা অনেক কাজে লাগতে পারে।

স্থান পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত আপনার প্রতিষ্ঠানের সক্ষমতা ও সুনাম বয়ে আনতে পারে, কিন্তু সেই অবস্থায় পৌঁছানোর পূর্বে কম দামে ভালো জায়গা পেতে এই পরামর্শগুলো মেনে চলুন।

সাবস্ক্রাইব করুন

No spam guarantee.

Comments

comments