এক নজরে নতুন স্যামসাং এস৫ মোবাইল ফোন

Share

২০১৪ এর বহু প্রত্যাশিত স্মার্টফোন আগমনের পথে।  এপ্রিলে সামস্যাং গ্যালাক্সি এস৫ এর বৈশ্বিক উন্মোচন হয়েছে। সামস্যাং সিরিজের  র্সবশেষ ফোনটি, এর পূর্ববর্তী গ্যালাক্সি এস৪ থেকে কিছু ফিচার রাখলেও এর সাথে যোগ করা হয়েছে অনেক নতুনত্ব। স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৫ মোবাইলফোনের বাজারে আশার আলো জ্বেলেছে।

বৈশিষ্ট্য সমূহ :

সাইজ/ আকার

স্যামসাং এস ৫ আকারে এস ৩ ও এস ৪ এর চেয়ে একটু বড়। অনেকটা গ্যালাক্সি নোট ও সনি এক্সপেরিয়া জেড ১ এর সমান। ফুলস্ক্রিনের এই ফোনটি যে কোন খুব সহজেই বহন করা যাবে।

বক্স/ কেস:

গ্যালাক্সি এস ৪ এর মত এস ৫ও অনেকটা চকচকে ও পাতলা ওজনের। যাই হোক, স্যামসাং সিদ্ধান্ত নিয়েছে এই ফোনটির ডিজাইন এবং মান আরো বেশি আকর্ষনীয় করার জন্য পেছনের কাভারে চামরার প্রিন্ট রাখা হচ্ছে।  এটি প্লাস্টিকের তৈরী হলেও হাতে নিলে মনে হবে এটি অনেক মজবুত এবং শক্তিশালী।

ওয়াটার প্রুফ:

পানি প্রতিবন্ধক স্যামসাং এস৫ মডেলের এই ফোনটি পানিতে ভিজলেও কোন সমস্যা দেখা দিবে না। অনেকটা স্যামসাং এস ৪ এর মত কার্যকরী কারণ এস৫ ওয়াটার প্রুফ।

প্রসেসর:

নতুন প্রসেসর, স্যমাসাং গ্যালাক্সি এস ৫ অনেকটা বাধ্য অ্যাপল আইফোনের  ৫সি এর মত নতুন ৬৪ বিট প্রসেসর দেবার জন্য।স্যামসাং এই সিপিইউ আপডেট করেছে এস৫ থেকে ২.৫ গেগাহার্জ স্কয়ার কোর প্রসেসর, যা আইফোন ৫সি দিচ্ছে চার্জের ধারণ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য।

স্ক্রিন/ পর্দা:

স্যামসাং এস ৫ মডেলের এই ফোনটিতে থাকছে ফুল ঝকঝকে পর্দা, রং এর দিক দিয়েও এস ৩ ও এস ৪ এর তুলনায় অনেক উন্নতমানের সুবিধা থাকছে। মুভি এবং ছবি দেখার সুযোগ আরো বেশি থাকছে এই ফোনে। কারণ এর রেসুলেশ্যন থাকবে অনেক উজ্জল এবং ঝকঝকে। স্যামসাং এস৫ এর পর্দা ৫ ইঞ্চি আপগ্রেড করেছে। সাথে এস৪ এর তুলনায় ৫.১ ইঞ্চি পর্যন্ত। বেশিরভাগ বড় পর্দার রেসুলেশ্যন কমার আশংকা থাকে। তাই ৫ ইঞ্চি স্ক্রিন ৪.৪.১ পিপি আই রেসুলেশ্যন থাকছে। অনেক ব্যবহারকারী এই হাই রেসুলেশ্যন এর পর্দা নিয়ে আশা প্রকাশ করেছে আবার অনেকে করছে না। যাই হোক এই স্ক্রিন পানি এবং ময়লা থেকে নিরাপদ রাখবে তার ভেতরের ডিভাইসগুলোকে।

অপারেটিং সিস্টেম এবং সফটওয়্যার:

গ্যালাক্সি এস৫ অ্যান্ড্যয়েড কিটকাট, ভার্সন ৪.৪.২ এর সাথে যুক্ত। স্যামসাং টাচ ওয়াইজ ওপারেটিং সিস্টেম বর্ডার ব্যবহারকারীকে দিচ্ছে, সাথে স্যামসাং এর ইউনিক অভিজ্ঞতা তো থাকছেই। এস ৪ এর তুলানায় দ্রুত সংযোগ এবং এস ফিচার নটিফিকেশন এর পরিবর্তনের সুযোগ থাকছে। তত্বীয়ভাবে, এই পরিবর্তন যে কোন ব্যবহারকারীকে মেনু অপশন, পেইজ এবং স্ক্রিনের দ্রুত ব্যবহারের ক্ষেত্রে সহযোগী হবে।

কানেক্টিভিটি /সংযোগ:

দ্রুত সংযোগ এর এই ফিচার আগের মডেলের চেয়ে উন্নত এবং স্যামসাং এস৫ এর সকল ডিভাইস ব্যবহারের জন্য একটি হাবের সংযোগ থাকবে। স্যামসাং ইঞ্জিনিয়াররা নকল অ্যাপল এয়ার প্লে এবং এয়ার ড্রপ এর ফিচার দিচ্ছে। যা ব্যবহারকারীদের একত্রে সত্যিকারের অভিজ্ঞতা মিলবে।

ক্যামেরা:

গ্যালাক্সি এস৫-এ ফ্রন্ট ও ব্যাক ফেসিং ক্যামেরা রয়েছে। ব্যাক ফেসিং ক্যামেরা ১৬ এবং ব্যাক ফেসিং ক্যামেরা ২ মেগা পিক্সেল ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন। এই ক্যামেরা প্রতি সেকেন্ডে  ৪ কে তথা ৩০ ফ্রেম শ্যুট করতে পারে। এছাড়াও গ্যালাক্সি এস৫-এ একসাথে উভয় ক্যামেরায় রেকর্ডিং ফিচার রয়েছে। উজ্জ্বল, বিভিন্ন ধরণের ছবি ধারণের জন্য ক্যামেরায় এইচডিআর ফিচার রাখা হয়েছে, এছাড়াও দ্রুত অটো ফোকাস ফিচার রাখা হয়েছে, যাতে করে ছবির বিষয়ের উপর সঠিক সময়ে দ্রুত ফোকাস করে নিখূত ছবি তোলা যায়।
নতুন এই ক্যামেরা ফিচারগুলো গ্যালাক্সি এস৫কে প্রয়োজনীয় ছবি তোলার জন্য গুরুত্বপূর্ণ উপকরণে পরিণত করেছে।
যারা তাদের স্মার্টফোনে শক্তিশালী ক্যামেরা চায়, তাদের জন্য গ্যালাক্সি এস৫-এ ভিডিও স্ট্যাবিলাইজেশনের মতো ক্যামেরা অ্যাপস সংযুক্ত করা হয়েছে, যাতে করে ছবি ধারণের পরই ছবিতে ফোকাস করা যায়। এই ফিচারটি ‘সিলেকটিভ ফোকাস’ হিসেবে পরিচিত। এছাড়াও  এস৫‘ রিফ্লেক্টর-ইন্টিগ্রেটেড ফ্ল্যাশ এলইডি’ ফিচার সংযুক্ত করেছে। এই নতুন ফিচার একটি ছবির সব সাবজেক্টের উপরই ফ্ল্যাশ ফেলবে, আগের প্রযুক্তিতে যা শুধু কেন্দ্রকে ফোকাস করতো। সামস্যাং দাবি করে যে, এই প্রযুক্তি ব্যবহারকারীদের আরো বিস্তৃতভাবে ছবি ধারণে সক্ষম করবে। ফিচারটি ডিভাইসকে দিনের বেলা ও অন্ধকার রাত্রি সব সময়ে মানসম্পন্ন  ছবি তোলার ক্ষমতা প্রদান করবে।

নিরাপত্তা:

হাতের ছাপের প্রযুক্তির মাধ্যমে এই ফোন তৈরী করার জন্য স্যামনাং এস৫ এর নিরাপত্তা থাকছে হাতের ছাপের স্ক্যানারের মত। অনেকটা আ্যপল টাপ আইডি ফিচার, এস ৫ সাধারণত স্ক্রিন টাচ স্কানার থাকছে, যেখানে হোম বাটনের পাশাপাশি হাতেরছাপের ব্যবহারেরও সুযোগ থাকছে।

ব্যাটারী:

এস৫ এর ব্যাটারী আগের মডেলে চেয়ে অনেক বেশি উন্নত। ২১ ঘন্টা টক টাইমের সুযোগ সুবিধা দিয়ে এই বাটারী এবং ৩৯০ ঘন্টা চার্জ থাকবে। এস৫ ফোনের নতুন ব্যাটারীতে আলট্রা লো পাওয়ার নামে একটি নতুন ফিচার থাকছে যা ২৪ ঘন্টা আগে ব্যবহারকারীদেও ১০ ভাগ চার্জ আছে বলে অ্যালার্ট করে দিবে। সেই সাথে এর স্ক্রিন এর রং কালো এবং সাদা দেখাবে।

তাহলে বাদ গেল কী? 

গ্যালাক্সি এস ৪ এর মত এই ফোনেও এফ এম সংযোগ থাকছে না। কারণ স্যামসাং এর বেশিরভাগ ব্যবহারকরীরা ইন্টারনেট থেকে অ্যপস নামিয়ে গান শোনেন। নিয়মিত ভ্রমণকারী  ইন্টারনেট সংযুক্ত ব্যক্তি এই ফিচারটিকে সম্পুর্ন কাজের উপযোগী হিসেবে পেয়েছে। গ্যালাক্সি এস৫ এফএম রেডিও ফিচার রাখেনি, কিন্তু কেউ চাইলে অ্যাপস ইনস্টলের মাধ্যমে তার চাহিদা পূরণ করতে পারবে। অ্যান্ড্রয়েড গুগল প্লে অফার ব্যবহারকারীদের জন্য ইন্টারনেটে টিউনইন এফএম রেডিও ফিচার রেখেছে । তারা চাইলে এটি ইনস্টল করতে পারবে। এই অ্যাপস থ্রিজি কানেকশন ও তারবিহীন (ওয়্যারল্যাস) সংযুক্ত অবস্থায় রেডিও সরবরাহ করবে। 

এইচটিসি গত বছর অনেক শক্তিশালী স্ট্রেরিও টাইপের স্পিকার এনেছিল। গ্যালাক্সি এস ৫-এ এই ধরনের এইচটিসি জাতীয় কোন হার্ডওয়্যার থাকছে না। তাই সাউন্ড কোয়ালিটি খুব একটা আশানুরুপ না হলেও ভবিষৎতে স্যামসং এর মডেলগুলোতে এই রকম ফিচার রাখা যেতে পারে।

বাংলাদেশে স্যামসাং :

সবশেষে বলা যায়, সামস্যাং গ্যালাক্সি এস৫ হল একটি ছোট, মসৃণ ইউনিটে অনেকগুলো ফোনের সমষ্টি । বাংলাদেশে স্মার্টফোন পাওয়ার ব্যবহারকারী ও যারা মোবাইলে তাদের অধিকাংশ কাজ সম্পন্ন করতে চায়, তাদের জন্য গ্যালাক্সি এস৫ বড় স্ক্রিন, উজ্জ্বল ডিসপ্লে, দ্রুত নেভিগেশন ও অন্যান্য ফিচার সংযুক্ত রাখা হয়েছে। যা ব্যবহারকারীদের কার্যক্ষমতা ও ডিভাইসের গতি বৃদ্ধি করবে। ধারণা করা হয় গ্যালাক্সি এস৫ সামস্যাং এর পক্ষ থেকে অ্যাপল আইফোন  ৫সি’র সমতুল্য, যদিও কিছু অ্যাপল ব্যবহারকারী হয়তো এর সাথে দ্বিমত পোষণ করবেন। সামস্যাং অ্যাপলের অনেক ফিচার অনুকরণ করেছে, তারপর সেগুলোকে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের সাথে সংযুক্ত করেছে।

গ্যালাক্সি এস৫ সামস্যাংয়ের সবচেয়ে নতুন ফ্ল্যাগশিপ ফোন, এবং বরাবরের মতোই এটি ফোনের মধ্যে শ্রেণীবিভাগ করবে। ২০১৪ সালের এপ্রিলে যখন উন্মোচন করা হবে তখন ফোনটির দাম ৬ থেকে ৭ হাজার ডলারের মধ্যে হবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে। কার্যকরী এবং আকর্ষণীয় এই  গ্যালাক্সি এস৫ই সম্ভবত এখন পর্যন্ত সামস্যাংয়ের সেরা ফোন। ব্যবহারকারী ও পর্যালোচকরা আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করছে ,বাজারে সামস্যাংয়ের নতুন ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইসের আগমনের জন্য।

সাবস্ক্রাইব করুন

No spam guarantee.

Comments

comments