আপনার গাড়িকে কীভাবে জরুরি অবস্থার জন্য প্রস্তুত রাখবেন

Share

গাড়ির রক্ষণাবেক্ষণে আপনি যত বেশি গুরুত্বই দিন না কেন গাড়ি চালানোর সময় যে কোনো স্থানে যে কোনো মূহুর্তে জরুরি অবস্থা দেখা দিতে পারে। বেশিরভাগ সমস্যা আগে থেকে আঁচ করা যায় না, কারণ বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সেগুলো এমনসব কারণে ঘটে, যার উপর আপনার সামান্যই নিয়ন্ত্রণ রয়েছে কিংবা আদৌ নিয়ন্ত্রণ নেই। যদিও আপনি কখনই জানতে পারবেন না ঠিক কোন মূহুর্তে আপনি গাড়ি নিয়ে জরুরি অবস্থায় পতিত হবেন তবে আপনি সেই অবস্থার জন্য প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে পারেন। আগে থেকে কিছু সাধারণ পদক্ষেপ গ্রহণ করে রাখলে জরুরি অবস্থায় আপনি প্রচুর চাপ এবং ঝামেলা থেকে বেঁচে যাবেন। এখানে কিছু জরুরি জিনিসের উল্লেখ করা হলো যেগুলো আপনার গাড়িতে সবসময়ই রাখা দরকার।

জাম্পার কেবল (Jumper cables)

আপনার ব্যাটরিটি নিঃশেষ হয়ে গেলে এবং আপনার আশেপাশে আপনাকে সাহায্য করার মতো কেউ থাকলে জাম্পার কেবল (Jumper cables) চমৎকার কাজের জিনিস হয়ে উঠতে পারে। আপনার জাম্পার কেবলটি কমপক্ষে 10 ফুট লম্বা হতে হবে এবং কমপক্ষে ৮ গেজ (8-guage) রাবার দিয়ে মোড়ানো থাকতে হবে। সঠিকভাবে জাম্পার কেবল ব্যবহার করার পদ্ধতিটি নিশ্চিতভাবে জেনে নিন।

জ্যাক (jack) এবং লাগ রেঞ্চ (lug wrench) সহ স্পেয়ার টায়ারের যন্ত্রপাতি

টায়ার ফেটে গেলে বা বড় ধরনের ফুটো হলে কীভাবে তা বদলিয়ে অতিরিক্ত টায়ারটি লাগিয়ে নিতে হয় তা শিখুন। ব্যবহৃত গাড়ির ক্ষেত্রে, রাস্তায় বের হওয়ার আগে দেখে নিন যে, সেখানে আদৌ কোনো অতিরিক্ত টায়ার রাখা আছে কি না। আপনার অতিরিক্ত টায়ারটিতে পর্যাপ্ত বাতাস রয়েছে কি না তা মাঝেমাঝেই পরখ করে দেখুন।

এয়ার কম্প্রেসর (Air compressor)

অতিরিক্ত টায়ার ব্যবহার করে আপনি কতদূর যাবেন সেই বিবেচনায় লক্ষ্য করে দেখুন যে, এটার বাতাস দ্রুতই ফুরিয়ে যাচ্ছে কি না। একটি এয়ার কম্প্রেসর, যেটিকে আপনার গাড়ির ব্যাটারি দিয়েই চালানো যাব, সেটির সাহায্যে আপনি টায়ারটিকে পুরোপুরি টানটান রাখতে আরও কিছুটা বাতাস ভরিয়ে নিতে পারেন।

এরোসল টায়ার ইনফ্ল্যাটর (Aerosol tire inflator)

যদি আপনার টায়ারের হাওয়া চলে যায় এবং আপনি এমন কোনো বিপদজনক স্থানে আটকে পড়েন যেখানে টায়ার বদলিয়ে নেয়ার মত সময় আপনার হাতে নেই, তবে এরূপ ক্ষেত্রে গাড়ি মেরামতের জন্য Fix-A-Flat এর মত এরোসল টায়ার ইনফ্ল্যাটর (aerosol tire inflator) দারুণ কাজ দেবে। ক্যানে ভরা এই জিনিসগুলো কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই আপনার টায়ারের ফুটো বন্ধ করবে এবং সেটিতে হাওয়া ধরে রাখবে। এই দ্রুত সারাই ব্যবস্থা আপনাকে নিকটতম সার্ভিস স্টেশনে পৌঁছে দেবে যেখান থেকে আপনি আরও বেশি স্থায়ীভাবে মেরামত করিয়ে নিতে পারবেন। এই জিনিসটি সবধরনের চাকার জন্য কাজ করে এবং তা ব্যবহারের পক্ষে সহজ ও নিরাপদ।

ফ্লেয়ার বা বিপদসংকেত দানকারী ত্রিভূজ (Flares or hazard triangles)

দুর্ঘটনা পরবর্তীকালে দুর্ঘটনাস্থলের দিকে আসা অন্যান্য যানবাহনকে সতর্ক করার দ্বারা জরুরি রোড ফ্লেয়ার বা আপৎকালীন প্রতিফলক ত্রিভূজটি আপনাকে এবং আপনার গাড়িটিকে নিরাপদ রাখতে পারে।

ফ্লাশ লাইট (Flashlight)

আপনি যদি রাতের বেলায় স্বল্প আলোকিত কোনো স্থানে দুর্ঘটনায় পতিত হন তাহলে আপনার গাড়ির যন্ত্রাংশগুলো খুঁজে পেতে একটি ফ্লাশ লাইটের প্রয়োজনীয়তা জরুরি হয়ে দেখা দেবে। আপনার যদি ব্যাটারিচালিত কোনো ফ্লাশ লাইট থেকে থাকে তাহলে একসেট অতিরিক্ত ব্যাটারি সঙ্গে নিতেও ভুলবেন না। বিকল্প হিসেবে যান্ত্রিক উপায়ে চালিত অর্থাৎ ঘূর্ণণশক্তির দ্বারা চালিত একটি ফ্লাশ লাইটও ব্যবহার করা যেতে পারে। আপনার লাইটের মডেলের উপর ভিত্তি করে সেটিকে হালকা ঝাঁকুনি দিলে অথবা ছোট একটা চাকা ঘুরালে কিংবা হ্যান্ডেলে সামান্য মোচড় দিলেই পর্যাপ্ত আলোসহ আপনার লাইটটি জ্বলে উঠবে।

সিটবেল্ট এবং জানালা দিয়ে বেরিয়ে আসার সরঞ্জাম (Seatbelt and window escape tool)

এই ধরনের ছোট সরঞ্জামগুলো আপনার হাতের তালুর মধ্যে বা হাতের মধ্যে এঁটে যায় এবং তা দুর্ঘটনা পরবর্তী সময়ে গাড়ির ভিতর থেকে দ্রুত বের হয়ে আসতে দ্বৈত উপায়ে কাজ করে। খাঁজকাটা ব্লেডটি দিয়ে মোটা সুতার তৈরি সিটবেল্ট কেটে ফেলা যায় এবং যন্ত্রটির স্টিলের তৈরি সুঁচালো মাথা দিয়ে জানালার কাঁচ দ্রুত ভাঙ্গা যায়। বিদ্যুৎচালিত জানালা বিশিষ্ট গাড়ির জন্য এই বৈশিষ্ট্যটি বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ কারণ সেগুলোকে বিদ্যুৎ ছাড়া খোলা যাবে না।

অগ্নি নির্বাপক

ছোট একটি অগ্নি নির্বাপক (distinguisher) যন্ত্র কিনে নিন যেটি দাহ্য অথবা বিস্ফোরক উভয়প্রকার তরল পদার্থ এবং বৈদ্যুতিক গোলযোগ ঘটিত অগ্নিকাণ্ডের পূর্বসংকেত প্রদান করতে পারে।

চিকিৎসা সরঞ্জাম

ব্যান্ডেজ, গজ, আঠালো টেপ, এন্টিসেপটিক ওয়াইপ এবং এন্টিব্যাকটেরিয়াল অয়েন্টমেন্ট ইত্যাদি প্রাথমিক চিকিৎসা সরঞ্জামসহ একটি ফার্স্ট এইড কিট রাখুন। আপনি বা আপনার পরিবারের কোনো সদস্যের যদি বিশেষ কোনো ঔষধ নির্ভরতা থাকে তাহলে সেই ধরনের কিছু সংখ্যক ঔষধ আপনার গাড়িতে মুজদ রাখাটা চমৎকার ধারণা হতে পারে। এতে করে দীর্ঘমেয়াদী কোনো জরুরি অবস্থায় তা হাতের কাছে পাওয়া যাবে।

খাবার ও পানি

দু’এক বোতল খাবার পানি সহ প্রোটিন বারের মত প্যাকেটজাত কিছু অ-পচনশীল স্ন্যাকস গাড়িতে মজুদ রাখার ধারণাটি মন্দ নয়। কারণ আপনি যদি দীর্ঘ সময়ের জন্য কোথাও আটকা পড়ে যান তাহলে সেগুলো আপনার প্রয়োজন মেটাবে।

এই জিনিসগুলোর সবকয়টিকে আপনার গাড়ির নির্দিষ্ট একটি জায়গায় কোনো একটি মোটা কাপড়ের ব্যাগ অথবা শক্ত খোলের ছোট বাক্সে একত্রে রাখুন। তাতে করে, জরুরি প্রয়োজনের সময় আপনি সহজেই আপনার দরকারি সবকিছু দ্রুত খুঁজে পাবেন।

সাবস্ক্রাইব করুন

No spam guarantee.

Comments

comments