বাজারে স্যামসাং এর জনপ্রিয় স্মার্টফোন

Share

প্রযুক্তিগত অগ্রগতি সর্বোচ্চ সেবা উপভোগকে সম্ভব করেছে। প্রযুক্তির প্রভাবে যোগাযোগ ব্যবস্থায় ব্যাপক উন্নতি সাধন হয়েছে। লোকজন এখন খুব সহজেই মুহুর্তের মধ্যে একে অন্যের সাথে যোগযোগ করতে পারছে। পাশাপাশি একই সময়ে তাদের বাড়ি-ঘর অথবা উপযুক্ত অঞ্চল থেকে খুব সহজেই তথ্য আদান-প্রদান করতেও পারছে। বাজারে স্যামসাং স্মার্ট ফোন আসার মাধ্যমে এটি আরো সহজ হয়েছে।এগুলোই সবচেয়ে আধুনিক সাম্প্রতিক স্মার্ট ফোন এবং এগুলো সর্বাআধুনিক প্রযুক্তি নিয়ে বর্তমান বাজারে এসেছে। যার ফলে ব্যবহারকারীরা অনুপম সেবার নিশ্চয়তা পেয়েছে।

স্মার্টফোন ব্যবহারে আপনার সর্বোচ্চ ইচ্ছার প্রতিফলন ঘটাতে এবং সর্বোত্তম সেবা নিশ্চিত করতে অনেক ধরনের ফিচারসহ স্যামসাং ফোন বাজারে এসেছে। ইউজার ফ্র্যান্ডলি ম্যানুয়াল নিয়েই প্রতিটি ফোন বাজারে এসেছে যাতে আপনি এই পোর্টেবল, হ্যান্ড- হেল্ড গ্যাজেটটির সর্বোচ্চ ব্যাবহার করার সবরকম তথ্য পাবেন।

এই ফোন গুলো আধুনিক ডিজাইনে তৈরি করা হয়েছে যার ফলে এগুলো খুব আরামদায়ক হয়েছে। এগুলোর রয়েছে ছোট বডি তবে তাতে শক্তিশালী অপারেটিং সিস্টেম ইন্সটল করা আছে যাতে আপনি আপনার ফোনের সর্বোচ্চ সুবিধাগুলো পেতে পারেন।

যদি আপনি ঢাকায় থাকেন তবে আপনি এই স্মার্ট ফোনগুলো সহজে লাইসেন্স করা খুচরা আউটলেটে খুঁজে পাবেন যেখানে শুধুমাত্র আসল পণ্যই কেনা-বেচা করা হয়। স্যামসাং ফোনে সম্প্রসারণযোগ্য ইনবিল্ট মেমোরি নিয়েই তৈরি হয়েছে যা আপনাকে খুব সহজে বড় ধরনের ডাটা সহজেই সংরক্ষনে সহায়তা করবে। স্যামাসাং শীর্ষস্থানীয় মোবাইল ফোন ব্রান্ড হওয়ায় দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারি নিয়েই তারা স্মার্টফোন বাজারে এনেছে। এটা আপনাকে ঘনঘন চার্জ দেয়া থেকে বিরত রাখবে, বিশেষ করে যদি আপনি ভ্রমনে থাকেন যেখানে বিদ্যুৎ সরবরাহ খুবই দুস্কর।

স্যামসাং স্মার্ট ফোন ব্যবহারকারীদের সুযোগ রয়েছে বিক্রয়ের জন্য সুবিন্যস্ত অনেক মোবাইল ফোন থেকে নিজের পছন্দের ফোনটি বেছে নেওয়ার। আপনি কুয়ারটি কী-প্যাড সম্পন্ন ফোন অথবা সর্বাধুনিক টাচ স্ক্রীন স্মার্টফোনও পছন্দ করতে পারেন। এসব ফোনে অধিকাংশ ব্যাটারি বারবার চার্জ করা ছাড়াই দীর্ঘ সময় ধরে ব্যবহার করা যায়। ফোনগুলোতে অসাধারণ প্রসেসিং স্পীড রয়েছে যাতে আপনি খুব কম সময়ে, সহজেই সমস্যা সমাধানে কাজ করতে পারবেন।

ট্র্যাকিং ডিভাইস সহকারে এই ফোন প্রস্তুত করা হয়েছে। এর একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হচ্ছে যদি আপনি ফোনটি কোন স্থানে রেখে চলে আসেন অথবা কিডন্যাপ অথবা চুরির কারণে আপনার অবস্থান যদি নিশ্চিত হওয়া না যায় তখন এটি খুঁজে পেতে আপনার উপকারে আসবে। আপনাকে উদ্ধার করতে এটি কর্তৃপক্ষ ব্যবহার করতে পারবেন। একইভাবে অন্য কোন ব্যক্তি আপনার সংরক্ষিত তথ্য ব্যবহার করা থেকে নিরাপত্তা দিতে একটি পাসওয়ার্ড থাকবে।

স্যামসাং স্মার্ট ফোনে যথেষ্ট আলো থাকে যেটা আপনি অন্ধকার অথবা ক্ষীন আলো সম্পন্ন স্থানে স্বাচ্ছন্দে ব্যবহার করতে পারবেন। সামসাং ফোন সর্বোচ্চ মানের ম্যাটেরিয়াল দিয়ে তৈরি যার মধ্যে রয়েছে ক্যাসিং এবং স্ক্রীন। স্ক্রীনটি আঁচড়ের কারণে বিশ্রী দাগ প্রতিরোধক হিসেবে তৈরি। একইভাবে এটি ফোনের কেইসেও ব্যবহার করা হয়েছে ফলে এটি পানি ও ধুলা প্রতিরোধক যা ফোনকে সবসময় পরিস্কার এবং আকর্ষনীয় রাখবে।

কিছু জনপ্রিয় স্যামসাং স্মার্টফোন

স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট-৩ঃ

এটি একটি মসৃণ মোবাইল ফোন যেটি আপনি খুব সহজে পকেটে রাখতে পারেন। এটির রয়েছে ১৩ মেগা পিক্সেল ক্যামেরা যা দিয়ে আপনি সর্বোচ্চমানের ছবি তুলতে পারেন এবং পরে তা প্রিন্ট অথবা ডিজিটাল ফরম্যাটে সংরক্ষন করতে পারবেন। অনন্য এ মোবাইলটি কেনার পর আপনি এর মধ্যে স্থিরকৃত অতিরিক্ত ২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা দেখে অবাক হবেন।

এটির মাধ্যমে অডিও ও ভিডিও উভয় ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ মানের রের্কডিং করা যাবে। এটিতে ১.৩ থেকে ১.৯ গিগাহার্জ পর্যন্ত প্রসেসিং স্পীড পাওয়া যাবে। এছাড়া এতে আধুনিক ও শক্তিশালী এনড্রয়েড ভি ৪.৩ সফটওয়ার রয়েছে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি ৫ডুয়সঃ

এটি দুই সিম বিশিষ্ট মোবাইল ফোন যেটি আপনাকে একই সময়ে দুটি ভিন্ন নেটওয়ার্ক এর সেবা নেবার সুযোগ দিবে। ৫ মেগা পিক্সেল ক্যামেরাসহ এতে র্দীঘস্থায়ী ব্যাটারি রয়েছে। এটির ছবি খুব স্বচ্ছ যেটি প্রায় ৪ ইঞ্চি পর্যন্ত কমানো যাবে। এটিতে ১ গিগাহার্জ প্রসেসর রয়েছে । এছাড়া অপারেটিং সিসটেম হিসেবে এতে এনড্রয়েড ভি৪ সফটয়ার ব্যবহার করে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি কোর ডুয়সঃ

অসাধারণ এই মোবাইল ফোনটির ৩২ জিবি পর্যন্ত এক্সপান্ডেবল মেমরি রয়েছে। ফলে আপনাকে আলাদা মাইক্রোএসডি কিনতে অতিরিক্ত টাকা খরচ করতে হবে না। এটি মসৃণ ডিজাইনের এবং ওয়াই-ফাই সিস্টেম্ও রয়েছে। ফলে আপনি মিউজিক এবং ডাটা অন্যান্য ইন্টারনেট র্নিভর ডিভাইস থেকে উপভোগ করতে পারবেন। এটি খুব দ্রুত ডাটা প্রসেস করতে সক্ষম কারণ এর রয়েছে ১.২ গিগাহার্জ প্রসেসর। এটি খুব সাশ্রয়ী মূল্যে পাওয়া যায়।

স্যামসাং গ্যালাক্সি গ্র্যান্ডঃ

এই ফোন কিনলে আপনি মনে করবেন একটি মিনি কম্পিউটার কিনেছেন কারণ এটিতে রয়েছে একাধিক উইন্ডোস যেখান থেকে আপনি একই সময়ে একাধিক কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন। এটির রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। এছাড়া সেকেন্ডারি মেগাপিক্সেল ক্যামেরাও রয়েছে যেটি আপনাকে নিশ্চিত করবে কোন কিছুর ছবিই বাদ পড়বে না।
এটি অপারেটিং এ আপনার স্কুইকি বাটন প্রয়োজন কারণ এটি টাচ পেন দ্বারা সজ্জিত যেটি টাচ সক্ষম বড় স্ক্রীনে ব্যবহার করা যায়। ৫ ইঞ্চি ডাইমেনশনের কারণে স্ক্রিনটির বড় ডিস্পেø এলাকা রয়েছে। এটি ১.২ গিগাহার্জ স্পীড এবং ডুয়েল কোর প্রসেসর বিশিষ্ট্য এন্ড্রয়েড অপারেটিং সিসটেমে নির্মিত।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ৪ঃ

এটি একটি অসাধারণ মোবাইল ফোন যা ভি৪.২.২ এন্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমে নির্মিত। এটি একটি শক্তিশালী ফোন যা একযোগে দুটি রের্কডিং করতে পারে। অধিক তথ্যের কাজে এটি গবেষক এবং সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির জন্যে উপযুক্ত। কারণ এটি তাদেরকে নিশ্চিত করবে যে কোন তথ্য অবশিষ্ট্য থাকবে না। এটির ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা যেটি একেবারে স্বচ্ছ ও ঝকঝকে নিঁখুত ছবি দিবে। এটি একেবারে পাতলা এবং ডুয়েল সিম বিশিষ্ট্য ফোন।

স্যামসাং গ্যালাক্সি গ্র্যান্ড কোয়েট্রোঃ

এটি স্বতন্ত্র ডিজাইনে নির্মিত কারণ আপনি হয়তো চাইবেন সব সময় এটি হাতে রাখতে এবং নিত্যনতুন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেতে। এটি ডুয়েল সিম বিশিষ্ট্য ও এন্ড্রয়েড ভি ৪.১২ অপারেটিং সিস্টেমে নির্মিত। এর বাইরের অতিরিক্ত ক্যাসিং দ্বারা সজ্জিত যা পড়ে গেলেও কোন সমস্যা হবে না। মনোরম ও দামি জিনিসটি অকেজো হবে না। ফলে অসময়ে চিরতরে নষ্ট হবে না আপনাকে এই নিশ্চয়তা দিবে ।

স্যামসাং গ্যালাক্সি ৩ মিনিঃ

এটি নিশ্চিতভাবে টাকার প্রকৃত উপযোগিতা দিবে। এটিতে ৮ থেকে ১৬ জিবি অভ্যন্তরীন মেমরি রয়েছে। এই মেমরি পূর্ণ হলে আপনি অতিরিক্ত মাইক্রো এসডি ব্যবহার করার সুযোগ পাবেন যা মাইক্রো এসডি স্লটে প্রবেশ করানো যাবে। আপনি ডকুমেন্ট লিখতে এবং এডিট করতে পারবেন। এতে রয়েছে ব্লু-টুথ সিসটেম যাতে আপনি খুব সহজে ডাটা শেয়ার করতে পারবেন। এই ফোনে ব্লু-টুথ ডিভাইস দিয়ে গান শুনতে পারবেন। অনায়াসে ইন্টারনেট ব্যবহার করা যাবে, এটির থ্রিজি বৈশিষ্ট্য দ্রুত ইন্টারনেট একসেস পেতেও সহায়তা করবে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৩ঃ

এটি ওয়াই-ফাই সম্পন্ন মোবাইল ফোন যা লাইসেন্সকৃত খুচরা আউট লেটে পাওয়া যাবে। এটি ১.৪ গিগাহার্জ কোয়াড কোর প্রসেসর অপারেটিং সিসটেম সম্বলিত। এটি দিয়ে আপনি বড় ফাইল ব্রাউজ এবং গান শুনার সময় খুব কম বিদ্যুৎ খরচ হবে। এটির ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা যা ভিডিও প্রডাকশনের কাজ করতে পারবে। এটিতে হাই ডেফিনেশনের ভিডিও রয়েছে যা আর্কষণীয় এবং একেবারে ঝকঝকে। এটিতে ইউএসবি পোর্ট আছে যাতে আপনি চাইলে কম্পিউটার সিসটেমে সংযুক্ত করতে পারেন এবং ডাটা স্থানান্তর করতে পারেন।
বাংলাদেশের ঢাকা শহরে অনেক তরুন ছাত্র-ছাত্রী আছে যাদের কাছে এই স্যামসাং স্মার্টফোনগুলোর প্রয়োজনীতা রয়েছে। ফোনগুলোতে স্ট্যাডি মেটেরিয়ালস ডাউনলোডের জন্যে ফোনগুলোতে ইন্টারনেট সংযোগ করা যাবে।

সাবস্ক্রাইব করুন

No spam guarantee.

Comments

comments