আসন্ন আইফোন ৬ বাজারে ছাড়ার বিষয়ে আপনি কী জানেন?

Share

এখন পর্যন্ত বিক্রি হওয়া হ্যান্ডসেটগুলোর মধ্যে অ্যাপল আইফোন হলো অন্যতম জনপ্রিয়। অতএব, যেহেতু প্রতি শরতে নতুন মডেল বাজারে ছাড়ার বিষটি নিয়ে সারা পৃথিবীর মানুষ অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে আছে, তাই এটি কোনো চমক হিসেবে আসা উচিত নয়। এই বছর, সমগ্র পৃথিবীর প্রযুক্তি প্রেমীরা এবং স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরা আইফোন ৬ বাজারে আসার জন্য প্রস্তুত হতে পারেন, কারণ এটি অ্যাপল ফোনের শ্রেনিতে সাম্প্রতিক সংযোজন। আসন্ন আইফোন সম্বন্ধে আমরা কী জানি এবং এই শ্রেনির ষষ্ঠ সংযোজন থেকে কী আশা করা যাবে এখানে তার একটি প্রিভিউ দেয়া হলো।

স্ক্রীনের আকার

নতুন আইফোনের সবচেয়ে বড় আকর্ষণ হতে পারে পূর্ববর্তী সংস্করণ থেকে এর স্ক্রীনের আকার নাটকীয়ভাবে অনেক বড় হবে বলে আশা করা যাছে। বৃহত্তর স্ক্রীনের আকার সম্বন্ধেই অধিকাংশ আলোচনা হচ্ছে কারণে অন্য যে কোম্পানিগুলো বৃহত্তর ফোন প্রদান করে আসছে, তারা ফাবলেট (একটি আদর্শ স্মার্টফোন এবং ট্যাবলেটের মাঝামাঝি আকারের) – বা ট্যাবলেট এবং ফোনের একটি সংকরের কথাও বিবেচনা করছে। আইফোন ৫ এর পূর্বসূরি থেকে বৃহত্তর স্ক্রীন নিয়ে এসেছিল, কিন্তু এই বছরের মডেলটি আরও বড় হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে এবং গ্রাহকদেরকে দু’টি ভিন্ন বিকল্প প্রদান করতে পারে। প্রথমটি হবে ৪.৭-ইঞ্চি স্ক্রীনের, আর অন্যটির স্ক্রীন হবে ৫.৫ ইঞ্চি। গেম খেলা থেকে শুরু করে স্টকের তথ্য সম্মন্ধে হালনাগাদ থাকার জন্য মানুষ যখন স্মার্টফোনের উপর নির্ভর করছে, তাই অ্যাপল তাদের স্ক্রীনের আকার বড় করলে আশ্চর্য হওয়ার কিছু থাকবে না। এবং এই সর্ববৃহৎ বৈশিষ্ট্যের জন্য ভক্তরা অপেক্ষা করে আছে, তাই এই নতুন সংকলনে তারা নিশ্চিতভাবেই তাদের গ্রাহকদেরকে খুশি করবে।

অপারেটিং সিস্টেম

নতুন আইফোনের দ্বিতীয় সর্ববৃহৎ সংযোজন হতে যাচ্ছে iOS8। অ্যাপল মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম যেভাবে ব্যবহারকারীদের ফোনে দেখা গেছে তার পথটি পুনর্গঠিত হয়েছে iOS7 বাজারে আসার মাধ্যমে। অতএব, সংযোজিত বৈশিষ্ট্যসহ iOS8 তা পুনরায় করতে সক্ষম হবে বলেই আশা করা যায়, এবং তা আপনার আইফোনকে আরও বেশি নিজের করবে। iOS8-এর কাঙ্খিত কিছু উন্নতির মধ্যে রয়েছে আইকনের জন্য নিখুঁত গ্রাফিকস, উন্নততর কণ্ঠ সনাক্তকরণ (Siri recognition), উন্নততর ইমেইল সংহতকরণ (email integration) এবং আরও অনেক কিছু। সবচেয়ে ভালো যা হতে পারে তা হলো, এর পূর্ববর্তী আপডেটগুলো মতোই, iOS7 এবং পূর্ববর্তী সংস্করণগুলোর ব্যবহারকারীগণ খুব সহজেই iOS8-এ চলে আসতে পারবে।

গঠনে পরিবর্তন

ষষ্ঠ আইফোনের গঠনে পরিবর্তন বলতে কেবল এর আকারে পরিবর্তনই ঘটবে না। অধিকন্তু, ব্যবহারকারীরা স্যাফায়ার গ্লাস (sapphire glass)-এর গঠন দেখার আশা করতে পারেন, যার লক্ষ্য হলো একটি অধিকতর টেকসই যন্ত্র তৈরি করা। অনেক ব্যবহারকারী এর খুব মসৃণ গ্লাসে সহজে ঝাপসা দাগ পরা বা আঁচড় পরে যাওয়া নিয়ে তাদের হতাশার বিষয়টি স্বীকার করবেন, কিন্তু স্যাফায়ার গ্লাস ব্যবহার করে একটি উন্নত গঠনসমৃদ্ধ ডিভাইস প্রদান করার মধ্যমে তার পরিবর্তন হতে পারে।

এর গঠনের নকশায় আরেকটি পরিবর্তন হতে পারে, যা হলো অধিকতর পাতলা বেজেল (ঢাকনা ধরে রাখার জন্য খোদাই করা গঠন) এবং অধিকতর গোলাকৃতির প্রান্ত। আইফোনের শেষ দুটি সংস্করণে ব্যবহারকারীদের জন্য অপেক্ষাকৃত সোজা প্রান্ত ছিল, কিন্তু এই ৬-এ আইফোন 3G এবং আইফোন 3GS-এর মতো অধিকতর গোলাকৃতির আকার ফিরে আসতে পারে।

ব্যাটারি

যদি মানুষ নতুন আইফোনের স্ক্রীনের আকার নিয়ে আগ্রহী না হয়, তবে তারা অবশ্যই নিশ্চিত হতে চাইবে যে ব্যাটারি লাইফ আরও ভালো হবে। বাজারের সবচেয়ে কার্যকর এবং শক্তিশালী যন্ত্রের অনেকগুলো থাকার পরও, ভালো ব্যাটারি লাইফের অভাবে আইফোন ডিভাইসের শ্রেণির চাহিদা গ্রাহকদের নিকট কমে গেছে। এর অর্থ হলো, যদি আপনার ডিভাইসটি রিচার্জ না করেই সারা দিন কাটাতে পারেন তবে আপনি ভাগ্যবান, তা না হলে চলমান অবস্থায় আপনার ব্যবহারের সামর্থ্যটি এটি সীমিত করে দেবে। সৌভাগ্যক্রমে, নতুনতম আইফোনের ব্যাটারি লাইফ অতীতের চেয়ে অনেক ভালো হবে বলেই সকলে আশা করছে। একটি অপেক্ষাকৃত ছোট এবং শ্রেয়তর ব্যাটারি লাইফের মাধ্যমে, রিচার্জ করার জন্য কোনো অলস সময় ব্যয় না করেই ব্যবহারকারীগণ দীর্ঘ সময়ের জন্য তাদের ফোন ব্যবহার করতে সমর্থ হবেন।

প্রক্রিয়াকরণ ক্ষমতা

ব্যাটারি লাইফ আরও উন্নত করতে, এর প্রক্রিয়াকরণ ক্ষমতা উন্নত করার মাধ্যমে অ্যাপল এর ব্যবহারকারীদের নিকট এটিকে আরও কার্যকর করার লক্ষ্য স্থির করেছে। আশা করা হচ্ছে যে, নতুন আইফোনে একটি A8 প্রসেসর ব্যবহার করা হবে, যা পূর্ববর্তী মডেলগুলো হতে দ্বিগুণ দ্রুতগতি সম্পন্ন পর্যন্ত হতে পারে। কিন্তু ব্যবহারকারীরা শুধুমাত্র আইফোনের সর্বোত্তম অ্যাপসমূহই ব্যবহার করার সুযোগ পাবেন না, তারা দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারি এবং দ্রুততর গতির মাধ্যমে তা ব্যবহার করতে পারবেন।

ক্যামেরা

নতুন অ্যাপল আইফোনের আরেকটি সুবিধা হতে পারে ক্যামেরাতে কাঙ্খিত পরিবর্তন। এখন যে অবস্থা দাঁড়িয়েছে, নতুন ফোনের মাধ্যমে অ্যাপল অনেক কাজ করতে পারবে। পূর্ববর্তী আইফোনে ছিল 8-মেগাপিক্সেল ক্যামেরা, যা এটি বাজারে আসার সময় ছিল সবচেয়ে ভালো। তবে, অন্য ফোনগুলো এখন আরও উন্নত ক্যামেরা প্রদান করে, যা কিছুটা বিস্ময় জাগায় যে অ্যাপল এবার কতদূর যাবে। এখন পর্যন্ত, গ্রাহকেরা আশা করছেন যে, এই বছরের শেষ দিকে যে নতুন আইফোন বাজারে ছাড়া হবে তার ক্যামেরা হবে ১০ এবং ১৩-মেগাপিক্সেলের মাঝামাঝি।

বাজারে ছাড়ার তারিখ

অবশেষে, সেই প্রশ্নটি যার জন্য সকলে অপেক্ষা করছে: নতুন আইফোন কখন বাজারে আসছে? সাধারণত, অ্যাপল তাদের আইফোনের মডেলগুলো শরৎকালে বাজারে ছাড়ে। এই বছর, অ্যাপল তার WWDC-এ ঘোষণা করেছে যে, iOS8 বাজারে ছাড়া হবে শরৎকালে, যা থেকে বোঝা যায় যে একটি নতুন হ্যান্ডসেট বাজারে ছাড়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। অধিকন্তু, অ্যাপলের একটি প্রস্তুতকারী কোম্পানি তাদের কাজের গতি অনেক বেশি বাড়িয়ে দিয়েছে, যার মানে হলো আমরা সম্ভবত বাজারে আসার কাছাকাছি চলে এসেছি। নতুন আইফোন বাজারে আসার কাঙ্খিত সময়সীমা হলো হয়ত সেপ্টেম্বর না হয় অক্টোবর মাসে, যা হবে পূর্ববর্তী ডিভাইসগুলোর তুলনায় দেরীতে। তবে, ভক্তরা যেহেতু এটি বাজারে আসার জন্য অধীর আগ্রহের সাথে অপেক্ষা করছে, তাই এটি অবশ্যই অপেক্ষার মূল্য দেবে।

যারা আইফোন বিক্রির জন্য সুযোগ খুঁজছেন এবং এই শ্রেণির সাম্প্রতিক আর চমৎকার সংযোজন ব্যবহার করতে ইচ্ছুক, তাদেরকে কিছুটা বেশি সময় অপেক্ষা করতে হতে পারে। তবে, এখন আরেকটি আইফোন ক্রয় করলে আপনার কিছুটা অর্থ বেঁচে যাবে, কারণ অ্যাপলের সাম্প্রতিক মডেল বাজারে আসার জন্য পুরাতন ডিভাইসগুলোর দাম পড়ে গেছে।

সাবস্ক্রাইব করুন

No spam guarantee.

Comments

comments