২০১৫ সালে বাজারে যে মোবাইল ফোনসমূহ আসছে…

Share

মোবাইল ফোনের জগতে এই বছরটি হবে দারুন একটি বছর। আপনি যদি দেশে থাকার চিন্তা করেন এবং একটি মোবাইল কিনতে চান, তবে ২০১৫ সালে অনেক ভালো ফোনের আশা করতে পারেন। কেনার পূর্বে আপনাকে অবশ্যই মোবাইলের সকল খুঁটিনাটি বিষয় সম্পর্কে জানতে হবে যাতে আপনি সেরা মোবাইলটিই কিনতে পারেন। ২০১৫ সালে বাজারে আসছে এমন কিছু চমৎকার মোবাইল ফোনের বিষয় নিচে উল্লেখ করা হল।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৬

২০১৫ সালে আসন্ন সেরা মোবাইল ফোনগুলোর মধ্যে স্যমসাং গ্যালাক্সি এস৬ অন্যতম। শোনা যাচ্ছে গ্যালাক্সি এস সিরিজের পূর্ববর্তী ফোনগুলোর চাইতে এর ফর্ম ফ্যাক্টরগুলো একদমই আলাদা হবে। এটি পূর্বের যেকোনো সময়ের চাইতে পাতলা হবে, কেননা এটি চমৎকার ইউনিবডি ডিজাইন সম্বলিত যার উপরিভাগ ও নীচের দিকটা অনেকটা বর্গাকার এবং আরও পাতলা। এর পেছন দিকটা খোলা যাবে এবং এর ব্যাটারিও অনেক বড় হবে। আইফোন ৬ এবং ৬ প্লাসের সাথে পাল্লা দিতে সম্ভবত এর ইন্টারনাল স্টোরেজ ৩২ জিবি বা ৬৪ জিবি এমনকি ১২৮ জিবিও হতে পারে। এছাড়াও, ফোনটিতে একটি মাইক্রো এসডি কার্ড স্লট থাকবে যা দিয়ে স্টোরেজ ১২৮ জিবি পর্যন্ত বর্ধিত করা যাবে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এ৭

২০১৫ সালে স্যামসাংয়ের আরেকটি ফোন বাজারে আসবে এবং সেটি হচ্ছে গ্যালাক্সি এ৭। চমৎকার এই ডিভাইসটি একটি সম্পূর্ণ ধাতব ইউনিবডি থাকতে পারে, যাতে এটিকে আপনার আরও অভিজাত মনে হবে। এটি একটি ফ্যাবলেট যার ৫.৫ ইঞ্চি সুপার অ্যামোলেড স্ক্রিন, পাতলা ফর্ম ফ্যাক্টর যা মাত্র ৬.৩ মিলিমিটার এবং ৬৪ বিট অক্টা-কোর প্রসেসর থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। এই মোবাইল ফোনের ইন্টারনাল স্টোরেজ ৩২ জিবি এবং ৬৪ জিবি এবং এতে ৩ জিবি র‍্যাম থাকার সম্ভাবনাই সবচেয়ে বেশি।

এইচটিসিওয়ান এম৯

এইচটিসিওয়ান এম৯ ২০১৩ সালের এইচটিসিওয়ান এম৭ ও গত বছরের এইচটিসিওয়ান এম৮-এর পদাঙ্ক অনুসরণ করে অ্যালুমিনিয়াম ইউনিবডি থাকতে পারে। এতে ১৬ জিবি ও ৩২ জিবি স্টোরেজ, এবং মেমরি ১২৮ জিবি পর্যন্ত বর্ধিত করার জন্য মাইক্রো এসডি কার্ড স্লট থাকতে পারে, যাতে আপনি অতিরিক্ত মিউজিক, ভিডিও, ছবি এবং আরও অনেক কিছুই সংরক্ষণ করতে পারবেন। এতে বুম সাউন্ড প্রযুক্তি ব্যবহার করার সম্ভাবনাই বেশি, যার ফলে এর শব্দের মান আরও বৃদ্ধি পাবে এবং এটি অ্যান্ড্রয়েডের ললিপপ অপারেটিং সিস্টেমে চলবে।

মাইক্রোসফট লুমিয়া ৫৩৫

২০১৫ সালের কোনো এক সময়ে বাংলাদেশে কমদামের মধ্যে সেরা যে মোবাইলটি পাওয়া যাবে তা হচ্ছে মাইক্রোসফট লুমিয়া ৫৩৫। এটি কমলা রঙের হবে এবং এর ৫ ইঞ্চি টাচ স্ক্রিন এবং ৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ থাকবে। যেহেতু মোবাইল ফোনটি উইন্ডোজ ৮.১ অপারেটিং সিস্টেমে চালিত, তাই এটি উইন্ডোজ ১০-এ আপগ্রেড করা যাবে। এতে একটি মাইক্রো এসডি স্লট থাকবে যাতে স্টোরেজ ১২৮ জিবি পর্যন্ত বর্ধিত করা যাবে। এটির একটি ডুয়াল সিম সংস্করণ পাওয়া যাবে যা ব্যক্তিগত কাজে ও কর্মক্ষেত্রে ব্যবহার করা যাবে।

সনি এক্সপেরিয়া জেড৪

সনি এক্সপেরিয়া জেড৪একটি দুর্দান্ত ফ্ল্যাগশিপ মোবাইল ফোন, যা ২০১৫ সালে বাজারে হবে। এতে বড় স্ক্রিন থাকবে, যা ৫.২ থেকে ৫.৫ ইঞ্চির মতো হতে পারে এবং একটি ৬৪ বিট স্ন্যাপড্রাগন কোয়াড-কোর প্রসেসর থাকবে। স্টোরেজ ৩২ জিবি হতে পারে যা মাইক্রো এসডি কার্ড দিয়ে ১২৮ জিবি পর্যন্ত বর্ধিত করা যেতে পারে। এক্সপেরিয়া এক্স সিরিজের মতো, জেড৪ ও ডাস্ট-প্রুফ এবং ওয়াটার-প্রুফ হবে।

এলজি জি৪

২০১৫ সালে এলজি জি৪ বাজারে আসবে এবং এটি বছরের সেরা অ্যান্ড্রয়েড ফোন হতে পারে। এতে অ্যান্ড্রয়েড ললিপপ অপারেটিং সিস্টেম, ৩ জিবি র‍্যাম এবং পাঁচ বা এমনকি ছয় ইঞ্চি স্ক্রিন থাকবে। শোনা যাচ্ছে এর স্ক্রিনটি স্যাফায়ার ক্রিস্টালের নতুন প্রযুক্তিতে তৈরি হবেএবং এতে ৬৪ বিট কোয়াড-কোর প্রসেসর থাকবে। এর ক্যামেরা হবে ১৬ মেগাপিক্সেল এবং ইন্টারনাল স্টোরেজ হবে ৩২ জিবি।

সাবস্ক্রাইব করুন

No spam guarantee.

Comments

comments