পোষা কুকুর কিনতে ক্রেতাদের জন্যে পরামর্শ

Share

একটি পোষা কুকুর কেনার পরিকল্পনার সময় পরিবারের সবাই আবেগাপ্লুত থাকেন। পরিবারে নতুন একটি সদস্য যোগ হলে, দীর্ঘ সময় ধরে তার প্রতি যেই অঙ্গীকার থাকতে হবে, সে বিষয়টি অনেকে বিবেচনা করেন না। ১০ -২০ বছর ধরে নতুন এই দায়-দায়িত্ব পালনের জন্য সবাই প্রস্তুত কিনা, সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে এই বিষয়ে আলোচনা করে নেয়া প্রয়োজন। সবাই একমত হলে, অন্যান্য আরো কিছু বিষয় বিবেচনা করতে হবে।

ব্যায়ঃ
একটি কুকুর ছানা বা কুকুরের জন্য কত টাকা বাজেট? একটি প্রশিক্ষিত কুকুর ও একটি সংকর জাতের কুকুর সমান নয়। নিয়মিত পশু যত্নের খরচও বাজেটের মধ্যে রাখতে হবে। খরচের মধ্যে পোষা প্রাণীটির খাবারের ব্যয়ও অন্তর্ভূক্ত করতে হবে। খাঁচা, ঘুমানোর কুশন ও গলাবন্ধনী কিনতে হবে।
আকারঃ
কুকুরের আকার নির্ধারণের সময় দেখতে পরিবারের সদস্যদের কুকুর ছানা না কুকুর পছন্দ? পরিবারের পরিবেশের সাথে কোন আকারের কুকুর মানানসই হবে। বড় হওয়ার পর কুকুরটির আকার কেমন হবে সে বিষয়টিও বিবেচনায় রাখতে হবে।

চুলঃ
একটি কুকুর পছন্দ করার ক্ষেত্রে পশমের বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ। ছোট চুলের রক্ষণাবেক্ষন ও যত্ন নেয়া সুবিধা। বড় চুলের নিয়মিত যত্ন প্রয়োজন। কোন ধরণের কুকুর পছন্দ করা হবে, সেটি অনেকাংশে নির্ভর করে কী আকারের ও কেমন চুলের কুকুর পছন্দ।
লিঙ্গঃ
নারী ও পুরুষ কুকুরের স্বভাবে পার্থক্য রয়েছে। পুরুষ কুকুর তাদের চারপাশের প্রতিটি কোণেই চিহ্নিত করে দিতে হয়। কুকুর নিজের জায়গা চিহ্নিত করার ক্ষেত্রে প্রশিক্ষিত নাও হতে পারে। মাদী কুকুরের বছরে দুইবার পিরিয়ড থাকে। কুকুরের জেন্ডার, পশম ও আকার পছন্দ করার আগে এই বিষয়ে কিছুটা গবেষনা করে নিতে হবে। এক্ষেত্রে ধারণার উপর নির্ভর না করে, কুকুরের প্রকারভেদের উপর পড়াশোনা করে নিতে হবে, তাহলেই জানা যাবে আপনার জীবনধারার সাথে কী ধরণের কুকুর উপযুক্ত হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের হিউম্যান সোসাইটি নিমক্ত পাঁচটি ক্রয় টিপস প্রদান করেছে:

১. পোষ্যকরণের ব্যাপারটি বিবেচনা: বিক্রয়ের জন্য রাখা কুকুরগুলোর পরিবর্তে কুকুর ছানা কিনলে সেটিকে পোষ মানানো সহজ হবে। কুকুরের আশ্রয়কেন্দ্রগুলো অনেক কুকুর থাকে, যার মধ্যে কিছু থাকে সদ্য জন্ম নেয়া। উদ্ধারকারী দল বিশেষ করে কুকুর ছানাদের বিক্রি করার জন্য নিয়ে আসে। হাইব্রিড, ডিজাইনার ডগ সহ বিভিন্ন ধরণের কুকুর পাওয়া যায়। শংকর কুকুর ছানা চমৎকার পোষ্য হয়।
২. বাসা বদল বা ভ্রমণে যাওয়ার সময় অনেকেই তাদের পোষা কুকুরটিকে ত্যাগ করেন। এর ফলে উদ্ধারকারী দল ও আশ্রয়দাতারা অনেক সময় পরিবার থেকে তৈরি করা পোষ্য পেয়ে থাকে। এগুলো নিজেদের কোন দোষে নয়, বরং মালিকের অন্য প্রয়োজনের কারণেই বাড়ি ছাড়া হয়।

উদ্ধারকারীদের থেকে পাওয়া কুকুরের দাম বিক্রির জন্য রাখা কুকুরের দামের চেয়ে কম হয়। টিকা, খাসি করা, গর্ভাশয় অপসারণ সার্জারি’র দাম ও পোষ্যকরণের সাথে সম্পৃক্ত অন্যান্য ব্যায় বিবেচনায় নিলে, ফ্রি কুকুরের চেয়ে পোষ্য কুকুর কেনা অনেক সাশ্রয়ী।
পোষা কুকুরের আচরণ বিশ্লেষণ নতুন পোষা প্রাণী কুকুরই পরিবারের জন্য বেশি উপযুক্ত। এ ধরণের কুকুরের পরিবারের পরিবেশের সাথে দ্রুত মানিয়ে নিতে পারে। উদ্ধারকারী দল ও আশ্রয়দাতা পোষা কুকুরের সাথে সম্পর্কে উন্নয়ন বিষয়ে কিছু উপদেশও প্রদান করেন।

৩. কুকুর ছানাদের বিচরণকেন্দ্র খুঁজে বের করুন ও সেটি দেখে আসুন। দায়িত্বসম্পন্ন কুকুর পালনকারী কোম্পানিগুলো ভালো ও স্বাস্থ্যকর পরিবেশে কুকুর লালন পালন করে। সেখান থেকে পছন্দের কুকুর ছানা বাড়িতে নিয়ে এসে সেগুলো লালন পালনের ভার নিন। একজন মানুষের কাছে টাকা আছে শুধু এই কারণেই একজন দায়িত্ববান কুকুর ছানা বিক্রেতা কারো কাছে কুকুর বিক্রি করবে না। কুকুর বিক্রির আগে, বিক্রেতা যদি ক্রেতাকে কিছু বিষয় সতর্ক না করেন, সেক্ষেত্রে সহজ সরল মানুষ লোভী বিক্রেতার কাছ থেকে পোষ মানে না এমন কুকুর কিনে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। বদমেজাজী ও অসুস্থ কুকুর তাৎক্ষণিকভাবে নাও বুঝা যেতে পারে।

দায়িত্ববান কুকুর লালন-পালনকারীরা নিম্নক্ত চেকলিস্টের বিষয়গুলো করেনঃ
-স্বেচ্ছায় কুকুর যেখানে থাকে সেটি দেখাতে উৎসাহী থাকে। তাদের কুকুরের বিচরণক্ষেত্র প্রশস্ত ও পরিস্কার থাকে।
-পরিদর্শনকারীদের দেখলে কুকুরগুলো বিরক্ত হয়না, সেগুলো দেখতে স্বাস্থ্যবান পরিষ্কার ও টসবগে হয়।
-প্রজননকারী কুকুর পোষ্য হিসেবে লালিত হয়, তারা দীর্ঘ সময় ধরে খাঁচা, নোংরা, জনাকীর্ন ও জনবহুল স্থানে বন্ধী থাকে না।
-খুব কম জাতের কুকুর, সম্ভবত এক ধরণের কুকুরই শুধু কুকুর জন্ম দান করে। কুকুর ছানা লালন-পালনকারীরাই প্রজননযোগ্য কুকুরের বিশেষ প্রয়োজনগুলো সম্পর্কে ভালো জানেন।
-কুকুরের জন্য সরবরাহকৃত জায়গাটি কুকুর ছানার প্রয়োজনও মেটাবে। ছোটকুকুর বাড়ির পরিবেশে থাকে। স্পোর্টিং কুকুরকে ব্যায়ামের জন্য প্রয়োজনীয় জায়গা দিতে হবে। ( নেশন ব্রিড ক্লাব প্রজনন কুকুরের জন্য বিশেষ প্রয়োজনীয় বিষয়ে পরামর্শ দিয়ে থাকে)।
-বাচ্ছা কুকুর সব সময় সহজলভ্য নয়। আগ্রহী ব্যক্তিগণ আশপাশের আবর্জনা ফেলার স্থানের একটি তালিকা রাখতে পারেন। কুকুর লালন পালনকারীর কাছে অন্যান্য কুকুর ছানা পালনকারী ক্লাব ও দায়িত্ববান কুকুর পালনকারীর সন্ধান দিতে পারবেন।
-নির্দিষ্ট কুকুরের শারিরীক ও মানসিক প্রয়োজন মেটানোর জন্য ব্যায়াম, সামাজিকীকরণ ও খেলনা সরবরাহ করতে হবে।
-পরিদর্শনের সময় কুকুর ছানাদের বাবা-মায়ের সাথে, বিশেষ করে মায়ের সাথে সময় কাটাতে উৎসাহিত করতে হবে।
-পশু চিকিৎসকের পরিদর্শনের রেকর্ড রাখতে হবে। কমপক্ষে একজন পশু চিকিৎসক এবং সম্ভব হলে একাধিক পশু চিকিৎসকের সাথে পেশাদারী সম্পর্ক স্থাপন করতে হবে।
-সম্ভাব্য উন্নয়ন ও জেনেটিক সমস্যার বিস্তারিত ব্যাখ্যা প্রদান করুন। কুকুর ছানাটির পূর্ব-পুরুষদের ব্যাপারে কোন ডকুমেন্ট থাকলে সেগুলোর পেশাদার মূল্যায়ন করুন।
-কুকুর ছানার প্রশিক্ষণ ও যতœ বিষয়ক নির্দেশনা পাওয়া যায়, কুকুর ছানা বাড়িতে নিয়ে আসলে এর দ্বারা কাজ করা সুবিধাজনক হবে।
-আগে যারা কুকুর ছানা কিনেছে তাদের রেফারেন্স প্রদান করবে।
-দায়িত্ববান কুকুর পালনকারীরা স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ের ক্লাবগুলোর সাথে যুক্ত থাকেন, সেখানে তারা ক্ষিপ্রতা ও জিনিস খুঁজে দেখার প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে।
-পোষা কুকুরের স্টোর ও ইন্টারনেটে অপরিচিত বিক্রেতাদের কাছ থেকে না কিনে,কুকুর কেনার জন্য অবশ্যই বিক্রেতার সাথে দেখা করতে হবে।
-পরিবারের সব সদস্যদের বারবার পরিদর্শনে উৎসাহিত করুন।
-লিখিত চুক্তি ও পোষা কুকুরের স্বাস্থ্য সম্পর্কে গ্যারান্টি প্রদান করা।
-বিশেষ কোন নির্দিষ্ট পশু চিকিৎসকের উপর জোর প্রদান করবে না। দায়িত্ববান পশু পালনকারীদের কাছ থেকে বিক্রেতা নিমক্ত বিষয়গুলো জেনে নিবেন।
– কেন কুকুর ক্রয় করতে চায়, সেটির ব্যাখ্যা জানতে চাইবে।
– তারা জানতে চাইবে যে, কুকুর ছানাটির দৈনন্দিন যতœ-আত্তি কে করবেন। কোথায় কুকুরটি তার অধিকাংশ সময় কাটাবে। পোষা প্রাণীর জন্য কোন নির্দিষ্ট নিয়ম নীতি আছে কিনা সেটি আলোচনা করে নিবেন-যেমন কুকুর ছানাটি ফার্নিচারের উপর উঠতে পারে কিনা।
– বাড়ির মালিককে কুকুর পালনের সুযোগ প্রদানের জন্য অনুরোধ করতে হবে।
– নতুন মালিককে পশু চিকিৎসকের রেফারেন্স প্রদান করতে হবে।
– কুকুরটিকে খাসি করা বা গর্ভাশয় অপসারণ সম্পর্কে অবশ্যই চুক্তি করতে হবে।
– চুক্তিটিতে উল্লেখ করতে হবে যে, মালিক যদি কখনো কুকুরটির লালন পালনে অসমর্থ হয়, সেক্ষেত্রে অবশ্যই সেটি ব্রিডারকে ফেরত দিবে।

ব্রিডারস পরিদর্শনের সময় চেকলিস্টটি চেক করতে হবে। অন্য ক্রয় টিপস হচ্ছে উচ্ছৃঙ্খল কুকুর ছানাকে পোষ মানানো।

৩. পোষা প্রাণী বিক্রেতারা সাধারণত দাবি করে তারা উচ্ছৃঙ্খল প্রাণী বিক্রি করে না। তারা বলে কুকুর ছানাটি ব্রিডারস থেকে এসেছে। বিশৃঙ্খল কুকুর ছানার ক্ষেত্রে ব্রিডারস প্রত্যয়টি বিভ্রান্তিমূলক।
৪. ইন্টারনেটে পারিবারিক বা বাড়িতে পালিত কুকুর ছানা বলে দাবি করা হলে, সেটি সব সময় সত্য হবে না, তাদের কথাকে পোষা প্রাণী বিক্রেতার কথার মতোই ধরে নিন।
৫. উদ্ধার প্রাপ্ত কুকুর ছানাকে উচ্ছৃঙ্খল কুকুর করার ঝুঁকি নেওয়া যাবে না। এই ধরণের অভিপ্রায় পশু শালায় আরেকটি বদ-মেজাজি পশুই শুধু বাড়াবে।

 

সাবস্ক্রাইব করুন

No spam guarantee.

Comments

comments