বাংলাদেশে খুচরা বিপণন খাতে চাকুরি সন্ধান

Share

আপনি কি বাংলাদেশে চাকুরি খুঁজছেন? আপনি ১৫ থেকে ৬৪ বছর বয়সী আরও ১০০ মিলিয়নেরও (১০ কোটি) বেশি নাগরিকের সাথে প্রবল প্রতিযোগিতায় লিপ্ত রয়েছেন। এই নিবন্ধটিকে ঢাকা, খুলনা এবং অন্যত্র চাকুরি পাওয়ার ক্ষেত্রে আপনার দিক নির্দেশক হিসেবে বিবেচনা করুন।

যে কোনো একটি ক্ষেত্র বেছে নিন

খুচরা বিপণন খাতের সকল চাকুরি একই রকম নয়। সেগুলোর জন্য আপনার একই ধরনের দক্ষতা প্রয়োজন হয় বটে, কিন্তু বিয়ের সাজসজ্জার সামগ্রী বিক্রয়ের দোকান আর অটো পার্টসের দোকানের পরিবেশের মধ্যে আপনি বিস্তর পার্থক্য দেখতে পাবেন। চাকুরির সন্ধানে নামার আগে ব্যবসার বিভিন্ন ধরণ সম্পর্কে এবং আপনাকে কোনটি সবচেয়ে বেশি ভালো মানাবে সে সম্পর্কে ভেবে নিন-
– মুদি দোকান
– ফ্যাশন
– কসমেটিক্স
– স্পোর্টস
– পোষাপ্রাণি
– ঔষধ
– ইলেক্ট্রনিক্স

এছাড়া আরও অনেক কিছু অবশ্যই রয়েছে, তবে এই কয়েকটি হলো সবচেয়ে বেশি চালু। মাঠে নামার আগে এবং সত্যি সত্যি কোথাও ঢুকে পড়ার আগে বিকল্প সম্ভাবনাগুলো সম্বন্ধে সর্তকভাবে ভেবে দেখুন।

আপনার দক্ষতা জানুন

আপনি কি টাকা পয়সার হিসাব রাখায় দক্ষ? আপনি কি যে কোনো গ্রাহকের মুখে হাসি ফোটাতে পারেন? চাকুরি অনুসন্ধানের ক্ষেত্রে, বিশেষ করে আপনি যদি ইতোমধ্যেই জেনে থাকেন যে কোন খাতটিতে চাকুরি করতে আপনি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করবেন, তবে আপনার জন্য জরুরি হলো নিজের শক্তি এবং দূর্বলতাগুলোকে জানা।

– আপনি যদি কোনো আসবাবপত্রের দোকানে চাকুরি পাওয়ার চেষ্টায় থাকেন তাহলে আপনি হয়ত একজন কাঠমিস্ত্রি বা ছুতোর হিসেবে নিজের অভিজ্ঞতাকে গুরুত্ব সহকারে তুলে ধরতে চাইবেন।

– আপনার জনসংযোগ দক্ষতা যদি অতটা ভালো না হয়ে থাকে তবে আপনি হয়ত লোকচক্ষুর অন্তরালে অবস্থান করে মালপত্রের হিসাব রাখা, মজুদকরণ ও সরবরাহ করার মত চাপমূলক কাজটি আপনার পছন্দমাফিক হওয়ায় তা বেশ ভালোভাবেই সামলাতে পারবেন।

– আপনি যদি আপনার বন্ধুবান্ধবের মধ্যে সবচাইতে কেতাদূরস্ত ব্যক্তিটি হয়ে থাকেন তবে হৃদয়গ্রাহী পোষাকআশাক পরে নিয়ে কোনো বিয়ের সাজসজ্জা বিক্রয়ের দোকানে চাকুরির সাক্ষৎকার দিয়ে ফেলুন।

এলাকা সম্পর্কে জ্ঞান

চাকুরি সন্ধানীদের জন্য ঢাকা এবং চট্টগ্রামের মত বড় শহরগুলোতে প্রচুর সুযোগ রয়েছে। এই জায়গাগুলোকে এদের আকারের কারনে বিভিন্ন জাতি, ধর্ম এবং বিশ্বাসের লোকজনের “মিলনক্ষেত্র” হিসেবে বিবেচনা করা যায়। আপনি যদি খুবই রক্ষণশীল ব্যক্তি হয়ে থাকেন অথবা আপনি যদি শাহবাজপুরের মত কোনো প্রত্যন্ত এলাকা থেকে এসে থাকেন তবে শহুরে অত্যাধুনিক জীবনযাত্রার সাথে মানিয়ে চলা আপনার পক্ষে কঠিন হতে পারে।

কাজ খুঁজতে অন্য শহরে যাওয়ার আগে নিজেকে নিচের প্রশ্নগুলো করুন:

– সেখানে কত লোক বসবাস করে?
– সেখানকার জনজীবন কেমন?
– নতুন অভিজ্ঞতাকে আমি কতটা ভালোভাবে সামলাতে পারি?
– নিজের ব্যয় বহনের জন্য আমি কি পর্যাপ্ত অর্থ উপার্জন করতে পারবো?
পারিপার্শ্বিক অবস্থা সম্পর্কে চিন্তা করুন
আপনার কর্ম এলাকা ছাড়াও আপনার আশেপাশের নিকটস্থ এলাকা সম্পর্কে ভেবে দেখাটা জরুরি। আপনি কি মৌচাক মার্কেটের জনতার ভীড় সামলাতে পারবেন, অথবা আপনি কি রাজশাহীর কোনো ছোট্ট পরিসরের টুকিটাকি জিনিসের দোকানে কাজ করতে পছন্দ করবেন?

আমাদের দেশে খুচরা বিপণন খাতে বিভিন্ন ধরনের চাকুরির সুযোগ রয়েছে, সে হিসেবেই এখানে শুন্যপদ অনুসন্ধানের জন্য কিছু জায়গার খোঁজ দেয়া হলো:

– ডিপার্টমেন্টাল স্টোর
– মুদি দোকান
– সুপার মার্কেট
– ওয়্যারহাউজ ক্লাব
– রাস্তার ধারের দোকান
একটি চাকুরি খুঁজে নিন
খুচরা বিপণন খাত সম্পর্কে বুঝে নেয়ার পর এবং আপনি কোন ধরনের চাকুরি চান তা জানার পর এখন সময় এসেছে মাঠে নেমে পড়ার এবং সত্যি সত্যি কোথাও চাকুরি পেয়ে যাবার। কোনো একটি পদে চাকুরি করার আগ্রহ প্রকাশ করার বিভিন্ন পদ্ধতি রয়েছে:

– কাগজে লিখে বা কম্পিউটারে টাইপ করে সরাসরি আবেদনপত্র পাঠানো
– চাকুরির জন্য অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করা
– ভবিষ্যতে সম্ভ্যাব্য কোনো নিয়োগের জন্য অগ্রিম আবেদনপত্র জমা দিয়ে রাখা

শুন্যপদে নিয়োগপ্রাপ্তির জন্য ইন্টারনেট একটি বড় উৎস। উদাহরণস্বরূপ, Bikroy.com এর মত সাইটগুলোতে শ্রেণিবদ্ধ বিজ্ঞাপন রয়েছে যেগুলো আবার বিভাগ এবং ধরন অনুযায়ী সাজানো রয়েছে। তাই আপনি এখানে ক্যাশিয়ার থেকে শুরু করে ব্যবস্থাপক পর্যন্ত সকল ধরনের চাকুরির সন্ধান পাবেন। সেগুলোর কতগুলোতে বেতন ও শিক্ষাগত যোগ্যতা উল্লেখ করা থাকে ফলে আপনার পক্ষে কোনো তথ্য জানা বাকি থাকে না।

সাক্ষাৎকার বৈতরণী পার হোন

আপনাকে সাক্ষাৎকারের জন্য ডাকা হলে কী করবেন? সাক্ষাৎকারের সময় আপনি নিজেকে কীভাবে উপস্থাপন করতে যাচ্ছেন? সম্ভ্যাব্য নিয়োগদাতার সামনে উপস্থিত হওয়ার পর আপনাকে যে কোনো কিছুর জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। সাক্ষাৎকার গ্রহণকারীগণ প্রায়শই জিজ্ঞাসা করে থাকেন এমন কিছু সাধারণ প্রশ্নের অল্প কয়েকটি এখানে দেয়া হলো:

– আপনার সবচেয়ে বড় দূর্বলতা কী?
– আপনি খুচরা বিপণন খাতে চাকুরি করতে চান কেন?
– পাঁচ বছরের মধ্যে আপনি নিজেকে কোন অবস্থানে দেখতে চান?

এই প্রশ্নগুলোর সঠিক উত্তর দেয়ার একটি পরিপূর্ণ কৌশল রয়েছে, বিশেষ করে আপনি যদি কোনো গ্রাহক সেবা খাতের চাকুরিতে সাক্ষাৎকার দিতে যান যেখানে প্রথম দর্শনেই ইতিবাচক ছাপ রাখার উপর অনেক কিছুই নির্ভর করে। শুধুমাত্র সাক্ষাৎকারের জন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতির অভাবে চমৎকার কোনো চাকুরির সুযোগ হারাবেন না।

উপযুক্ত পোষাক পরিধান করুন

কাজের জন্য আবেদন করতে হলে কঠিন কঠিন প্রশ্নের সঠিক উত্তর দেয়ার পাশাপাশি আপনাকে দেখতে পেশাদার মনে হওয়াটা গুরুত্বপূর্ণ। এটি যেহেতু খুচরা বিপণনের ব্যাপার তাই এমন কিছু কৌশল রয়েছে যা আপনাকে আগে থেকেই জেনে রাখতে হবে।

– অতি চৌকসভাব দেখাবেন না। আপনি যদি রাস্তার ধারের খুচরা শিক্ষানবীস বিক্রেতা হিসেবে আবেদন করে থাকেন তবে আপনার পক্ষে কোনো থ্রি-পিস স্যুট পরে সাক্ষাৎকারে উপস্থিত হওয়া উচিত হবে না। এর দ্বারা এটাই বোঝা যাবে যে, কাজে হাত লাগাবার পাত্রটি আপনি নন।
– আরামদায়ক জুতা পরিধান করুন। বেশিরভাগ খুচরা বিপণন খাতের চাকুরিতে ঘন্টার পর ঘন্টা একটানা দাঁড়িয়ে কাজ করতে হয়, তাই আপনি সাধারণ ফ্লাট জুতা বা চপ্পল পরিধান করলে তা সাক্ষাৎকার গ্রহণকারীকে এই ধারণাই প্রদান করবে যে, আপনি আপনার কাজের ধারা সম্পর্কে ভালোই জ্ঞান রাখেন।
– স্থানীয় সংস্কৃতিকে শ্রদ্ধা করুন। উদাহরণস্বরূপ, আপনার চাকুরি খোঁজার জায়গা যদি হয় মুসলমান অধ্যুষিত কোনো এলাকা তবে আপনি চাইবেন না যে আপনার পোষাকের অসঙ্গতি বা আপনার চুল ঢেকে না রাখার কারণে আপনার ভবিতব্য ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা অসন্তুষ্ট হোক।

সৎ হোন

চাকুরি প্রার্থীদের মিথ্যভাষণের সাথে সাক্ষাৎকার গ্রহণকারীরা ভালোভাবেই পরিচিত, তাই মিথ্যার আশ্রয় গ্রহণকারীদের দলে যোগ না দিলেই বরং আপনি নিজেকে আলাদাভাবে তুলে ধরতে পারবেন। চাকুরি অনুসন্ধানের সময় আপনাকে কিছু নিয়ম সর্বদাই মেনে চলতে হবে:

– আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা বা কর্মজীবন বৃত্তান্ত সম্পর্কে মিথ্যাচার করবেন না।
– আপনি যখন সত্যিই জানেন যে, শুধুমাত্র খন্ডকালীন হিসেবে কাজ করার মত সময় আপনার হাতে আছে সেরূপ ক্ষেত্রে আপনি বলবেন না যে, আপনি পূর্ণকালীন হিসেবে কাজ করতে পারবেন।
– আপনার ব্যক্তিগত জীবনের ঘটনা বাড়িয়ে বলবেন না।

আসল সত্যিটা ধরা পড়লে যে শুধুই আপনার এবং আপনার নিয়োগদাতার মাঝে বিশ্বস্ততা নষ্ট হয়ে যাবে তা-ই নয় বরং আপনি আপনার চাকুরিটিও চিরতরে হারাতে পারেন। আপনার কাছে যদি এমনটিও মনে হয় যে, সামান্য দু’একটা মিথ্যা আপনার জীবনবৃত্তান্তের জৌলুস বাড়িয়ে দেবে, সেক্ষেত্রেও এ ধরনের প্রবল ইচ্ছাকে দমন করুন। শেষ পরিণতিতে সততা সবসময়ই সর্বোৎকৃষ্ট পন্থা হিসেবে প্রমাণিত হয়।

বাংলাদেশে চাকুরি খুঁজে পাওয়াটা সবসময়ই সহজ নয়। কিন্তু আপনি যদি এই টিপসগুলো অনুসরণ করেন তবে আপনি অনেক বেশি সফল হবেন। অনেক পদ এখনও খালি রয়েছে। আপনাকে শুধু জানতে হবে যে, কোথায় তা খুঁজতে হবে, কখন সাক্ষাৎকারের জন্য যেতে হবে এবং নিজের সুযোগকে কীভাবে সর্বোচ্চমাত্রায় কাজে লাগাতে হবে।

গুড লাক!

সাবস্ক্রাইব করুন

No spam guarantee.

Comments

comments