কিভাবে সেরা এন্ট্রি লেভেল ডিজিটাল ক্যামেরা খুঁজে পাবেন?

Share

ভালো ছবি তুলতে হলে কী করে ক্যামেরা কিনতে হবে তা জানা থাকলে ভালো। বাজারে অনেক ক্যামেরা রয়েছে, ছোট পয়েন্ট অ্যান্ড শুট ক্যামেরা থেকে অনেক দামী পেশাদার (প্রফেশনাল) ক্যামেরা। সঠিক ক্যামেরা বাছাই করা নির্ভর করে ক্যামেরার সাথে আপনার চাহিদার সমন্বয়ের উপর।

আমি কোন ক্যামেরা কিনবো?

আপনি কোন ক্যামেরা কিনবেন তা নির্ভর করছে আপনি ক্যামেরা দিয়ে কী করবেন তার উপর। আপনি যদি মাঝেমধ্যে পরিবার, বন্ধুবান্ধব এবং কোনো অনুষ্ঠানের ছবি তুলতে চান, তবে তা করার জন্য অনেক এন্ট্রি লেভেল ক্যামেরা পাবেন। আপনি যদি কেবল একবার ব্যাবহারের জন্য কোনো ক্যামেরা খুঁজেন, তবে অনেক কমদামী ক্যামেরা পাবেন যাতে আপনার বেশি টাকাও খরচ হবে না অথচ ভালো ছবিও তুলতে পারবেন।

ক্যানন (Canon)

ক্যামেরা বিক্রির শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান ক্যাননের সাশ্রয়ী আলট্রা-কমপ্যাক্ট ক্যামেরা থেকে শুরু করে চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য ব্যবহৃত ক্যামেরা পর্যন্ত অসংখ্য মডেলের ক্যামেরা রয়েছে। সেরা পকেট ক্যামেরাগুলো ক্যাননের তৈরি, এবং মানুষ এগুলোর হাল্কা-পাতলা গঠন বেশ পছন্দ করে। ক্যানন এলফ (Canon Elph) এক ধরনের ক্যামেরা ফোনেরই সেট-আপ, এবং এতে ১০X জুম রয়েছে, যা দুই হাতের বেশি দূরত্বের ছবি তোলার জন্য যথেষ্ট। ক্যামেরা স্পীড পশুপাখি ও বাচ্চাদের ছবি তোলার জন্য যথেষ্ট দ্রুত। এই ক্যামেরাটি সকল আলট্রা-কমপ্যাক্ট ক্যামেরার মধ্যে সবচেয়ে বেশি ফিচার সমৃদ্ধ মডেল, এবং সবসময় বহন করার জন্য আপনার পকেটে এঁটে যাবে।

ক্যাননের ক্যামেরাগুলো এদের তীক্ষ্ণ রেজুলেশান এবং স্বয়ংক্রিয় সেটিং-এর জন্য বিখ্যাত, যা ছবি তোলা অনেক সহজ করে দিয়েছে। কমপ্যাক্ট ডিজিটাল ক্যামেরা রিভিউয়ে ক্যানন সবার উপরে।

নিকন (Nikon)

নিকন ক্যামেরা বাজারে জনপ্রিয় ক্যামেরাগুলোর অন্যতম এবং সৌখিন ফটোগ্রাফারদের পছন্দ। আপনি অ্যাকশন শট নিতে চাইলে নিকন সমসাময়িক সেরা ক্যামেরাগুলোর মধ্যে অন্যতম। অন্যান্য ব্র্যান্ডের চাইতে এর শাটার স্পীড বেশি এবং ম্যানুয়াল শুটিং শুরু করার জন্য দারুন। আপনি সহজেই স্বল্প আলো, অ্যাকশন, লং-শটের জন্য সেটিং পরিবর্তন করতে পারবেন। কিছু ডিজিটাল ক্যামেরা রিভিউ নিকনকে সেরা ডিজিটাল ক্যামেরা বলে উল্লেখ করেছে।

পানিরোধী ক্যামেরা

আপনি যদি পানিরোধী ডিজিটাল ক্যামেরা খুঁজে থাকেন, তবে পেনটেক্স (Pentax) দিচ্ছে সবচেয়ে বেশী সংখ্যক দীর্ঘস্থায়ী ক্যামেরার বিকল্প, যা সব ধরনের আবহাওয়ায় ছবি তোলার উপযোগী। আপনি সমুদ্র সৈকত বা পানির নিচে ছবি তুলতে চাইলে, এর জন্য অনেক ভালো ভালো ক্যামেরা রয়েছে। একটি পানিরোধী ক্যামেরা ক্রুজ শীপ, ঝড়বৃষ্টির দিনে, অথবা যেখানে ভিজে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে এমন জায়গার জন্য আদর্শ। প্রফেশনাল ফটোগ্রাফাররা দীর্ঘস্থায়িত্ব ও সকল আবহাওয়া উপযোগী মডেলের জন্য পেনটেক্স পছন্দ করেন।

জুম ক্যামেরা

আপনি যদি দূর থেকে ছবি তুলতে চান, তবে ভালো জুমের ক্যামেরা থাকা জরুরী। সনি কমপ্যাক্ট সিস্টেমের ক্যামেরা তৈরি করে থাকে, যাদেরকে বিভিন্ন রিভিউয়ে সেরা জুম ক্যামেরা বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এসব ক্যামেরার মাধ্যমে আপনি প্রকৃতি, বন্যপ্রাণী, এবং বিল্ডিংয়েরও ভালো অ্যাকশন শট নিতে পারবেন। এদের কিছু উঁচু মানের ক্যামেরা বাজারে প্রফেশনাল ডিজিটাল ক্যামেরার মতোই ভালো।

সস্তা ক্যামেরা

আপনি যদি বাজারের সেরা সস্তা ক্যামেরা কিনতে চান, তবে লুমিক্স (Lumix)-এর মত ভালো আর কিছু হতে পারে না। যারা নতুন ক্যামেরা কিনছেন এবং নির্ধারিত ফলাফল পেতে বিভিন্ন ফাংশনের ব্যাবহার শিখতে চাচ্ছেন তাঁদের জন্য এই ব্র্যান্ডের ক্যামেরা সবচেয়ে ভালো। লুমিক্স ক্যামেরা দিয়ে আপনি প্যানারমিক ছবি, দূরের এবং কাছের ছবি তুলতে পারবেন। পরিবর্তনযোগ্য লেন্স এবং ম্যানুয়াল সেটিংয়ে পরিবর্তনের সুযোগের কারণে স্বল্পমূল্য সত্ত্বেও লুমিক্স অন্যান্য এন্ট্রি-লেভেল ডিএসএলআর (DSLR)-এর সমতুল্য।

স্যামসাং ক্যামেরা

প্রযুক্তি শিল্পে স্যামসাং শীর্ষস্থানীয়দের একটি, এবং তাদের ক্যামেরা আপনাকে হতাশ করবে না। স্যামসাং-এর সেরা বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এর ওয়াই-ফাই (Wi-fi) সুবিধা। বেতার অ্যাক্সেসের মাধ্যমে আপনি আপনার ক্যামেরা থেকে সরাসরি স্মার্টফোন, ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ কম্পিউটারে ছবি স্থানান্তর করতে পারবেন। এতে সহজেই আপনি ছবি শেয়ার করতে পারবেন। ঝকঝকে ছবির জন্য স্যামসাং সেরা, এবং গ্রাহক রিভিউয়ে সবসময় উপরের দিকে থাকে।

ডিজিটাল ক্যামেরা কেনা

আপনার চাহিদা অনুযায়ী ভালো ক্যামেরা কেনার চাবিকাঠি হচ্ছে কোন বিষয়গুলো আপনার কাছে গুরুত্বপূর্ণ তা খুঁজে বের করা।

রেজুলেশন

এটি নির্ধারণ করবে আপনার ছবি কতটা ঝকঝকে হবে। কিছু ক্যামেরার রেজুলেশন এতোটা ভালো যে তা রঙগুলোকে ফুটিয়ে তোলে, যা আপনার ছবিকে জীবন্ত করে তোলে। অন্যান্য কামেরায় কিছুটা কম রেজুলেশন থাকায় তাতে মোটামুটি ছবি ওঠে কিন্তু তা খুব ভেশি ভালো হয় না। মূল বিষয় হচ্ছে ক্যামেরার মেগাপিক্সেল কত তা দেখতে হবে। যত বেশী মেগাপিক্সেল ততো ঝকঝকে ছবি।

লেন্স

আপনি কোন ধরনের ছবি তুলতে পারবেন তা নির্ভর করে লেন্সের প্রস্থ ও দৈর্ঘ্যের উপর। ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স দিয়ে আপনি অনেক বড় ছবি তুলতে পারবেন, যেমন আকাশ বা শহরের ল্যান্ডস্কেপের ছবি। টেলিফটো লেন্স খেলাধুলার ছবি এবং পোট্রেট ও এমন পরিস্থিতি যেখানে অনেক দূর থেকে ছবি তোলা লাগবে সেসব ক্ষেত্রে উপযুক্ত। অধিকাংশ ডিজিটাল ক্যামেরার সাথে একটি স্ট্যান্ডার্ড অ্যাঙ্গেল লেন্স থাকে। সাধারণ ক্যামেরার অসুবিধা হচ্ছে ভালো ছবি তোলার জন্য আপনি চাইলেই লেন্স পরিবর্তন করতে পারবেন না। ডিএসএলআর (DSLR) ক্যামেরায় ভালো অ্যাঙ্গেল ও রেজুলেশনের জন্য লেন্স পরিবর্তন করতে পারবেন।

সেরা কমপ্যাক্ট ডিজিটাল ক্যামেরা খুঁজে পেতে, অনেক ভালো ভালো বিকল্প রয়েছে, যা আপনাকে স্বল্পমূল্যে ভালো ক্যামেরা কিনতে সাহায্য করবে। সাধারণ পয়েন্ট অ্যান্ড শুট ক্যামেরা থেকে শুরু করে অনেক দামী ডিএসএলআর (DSLR) ক্যামেরার মধ্যে সঠিক ক্যামেরাটি বাছাইয়ের মাধ্যমে আপনি পেতে পারেন অনেক বছরের স্মৃতি। আপনি ব্রিজ ক্যামেরা বা আপনার পকেটে এঁটে যাবে এমন সাধারণ ক্যামেরা যাই খুঁজুন না কেনো, এমন একটি ক্যামেরা আছে যা আপানার চাহিদা মেটাতে পারে। আপনার চাহিদা পূরণ করে এবং সহজে ভালো ছবি তোলার জন্য ম্যানুয়াল ও অটোম্যাটিক উভয় সেটিং-ই রয়েছে, এমন ক্যামেরা খুঁজে বের করুন। অনেক ভালো ভালো ব্র্যান্ড রয়েছে, যেখানে প্রত্যেকেই নতুন ব্যাবহারকারিদের জন্য বিভিন্ন সুবিধা প্রদান করছে।

অনলাইনে বিক্রি হবে এমন ক্যামেরা থেকে উপযুক্ত ক্যামেরাটি খুঁজে বের করুন।

সাবস্ক্রাইব করুন

No spam guarantee.

Comments

comments