বাংলাদেশে পোষ মানাতে সহজ এমন কুকুরের প্রজাতি

Share

আপনি কি কুকুর কিনতে চাইছেন কিন্তু নিশ্চিত নন যে কোনটি আপনার জন্যে ভালো হবে। বাংলাদেশে পোষা কুকুর রাখা হয়তো কঠিন হতে পারে। কুকুর কিনতে গেলে সব ধরনের কুকুর দেখে খুবই দ্বিধাদন্দ্বের ভেতর পড়তে হয়। এই আর্টিকেল আপনাকে একটা বাংলাদেশে রাখার জন্য সহজ এবং উপযোগী কুকুর কোনগুলো সে বিসয়ে ধারনা পেতে সাহায্য করবে।

সারাইল হাউন্ডঃ

এই কুকুর গুলো অবয়বের দিক থেকে গ্রেহাউন্ড এর মতো। কিন্তু এরা বাংলাদেশের কুকুরদের সমগোত্রীয়। এ কারণে এ কুকুর গুলো বাংলাদেশের জন্যে খুবই ভালো, এবং এরা জলবায়ুর সাথে ভালো মানিয়ে নিতে পারে। যদিও আগের মতো এখন এতোটা বেশি এদেও দেখা যায় না, আপনি এদেরকে অনলাইনে খুঁজে পাবেন। এরা ১১ বছর গড় আয়ুর মাঝারি সাইজের কুকুর। তাই এটি মনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ যে আপনি যদি এদের বাচ্চা অবস্থায় নিয়ে আসেন তবে অনেক সময় ধরে আপনি এদের পুষতে পারবেন। এদের কিছুটা দূর্বল মনে হতে পারে কিন্তু এরা খুবই কর্কষ ( যেহেতু এরা বন্য কুকুরের সাথে মিক্সড) এবং অনেক বেশি অনুগতও। এরা যেহেতু অনেক বেশি হারে হারিয়ে যাচ্ছে তেমনি এদের নিজের দেশে আবার প্রচুর পরিমানে জন্মানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। এ কুকুর গুলোর একটি পুষতে পারা শুধু সহজ নয় বরং দেশের (যেহেতু এটা বাংলাদেশেই বড় হয়) প্রজাতিকে সংরক্ষণ করাও।

পমারেনিয়ানঃ

এই ছোট কুকুরগুলো কুকুরছানা হিসেবে অনলাইনে বিক্রি করতে প্রায় দেখা যায়। এগুলো খুঁজে পাওয়াও খুব সহজ। এ কারণে এগুলোর মালিক হওয়াও সহজ। যেহেতু এ কুকুরগুলো খুব ছোট (প্রায় ২ কেজি) তাই এগুলো আপনার সাথে এবং বাড়িতে পোষা খুব সহজ। ছোট জায়গার জন্য এরা উপযুক্ত তাই এপার্টমেন্ট বসবাস কোন সমস্যা না। আর এদের জন্যে অনেক বেশি ব্যায়ামেরও প্রয়োজন হয় না। পী প্যাডেই এদেরকে হাউজট্রেন্ড করা যায়। পোমেরানিয়ানরা খুব ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন এবং একজনের সাথে লেগে থাকার জন্যে বেশ পরিচিত। তাদের আকারই বলে দেয় এদের জন্যে তেমন খাবারের প্রয়োজন হয় না। তাই এদের পোষা তেমন ব্যয় বহুল না। যদি আপনার ছোট জায়গা থাকে কিন্তু আপনি এমন বন্ধু চান তবে পোমেরানিয়ানই হতে পারে আপনার উপযুক্ত কুকুর।

ইন্ডিয়ান পারিয়াহ কুকুরঃ

ইন্ডিয়ান পারিয়া কুকুর মাঝেমাঝে বন্য অথবা পাশবিক হিসেবে দেখা যায় এবং এদেরকে এ অঞ্চলের সর্বত্র পাওয়া যায়। যেহেতু এটি সাধারণত এই অঞ্চলে পাওয়া যায় এবং এমনকি কিছু কিছু ক্ষেত্রে প্রাকৃতিকভাবে বেছে থাকতে পারে, যা এই কুকুরকে যারা বাড়ির বাহিরে থাকে এবং প্রচন্ড কর্মঠ তাদেও জন্য উপযোগী হতে পারে। এই কুকুরগুলো খুবই সামাজিক এবং সর্তক। এরা হচ্ছে প্যাক প্রাণী তাই এদের যদি বাচ্চা অবস্থা থেকেই লোকজনের সাথে সামাজিকরণ ঘটানো যায় তবে এরা খুব ভালোভাবে তা আয়ত্ব করতে পারে। এরা খুব বুদ্ধিমান তাই এদের অকুপাইড এবং চ্যালেঞ্জ করে রাখা উত্তম। এগুলো এদের প্রাকৃতিক প্রবৃদ্ধির কারণে খুবই স্বাস্থ্যবান তাই এদের স্বাস্থ্য সমস্যা নিয়ে আপনাকে দুশ্চিন্তায় পড়তে হবে না। এগুলো মাঝারি সাইজের কুকুর (প্রায় গড়ে ২০ কেজি)। তাই এদেরকে পরিচালনা করা খুব কঠিন না। যদি আপনি এমন একটি কুকুর চান যার সাথে অনেক সময় কাটাতে পারবেন এবং যে আপনার পরিবারের সঙ্গী হয়ে থাকবে, তাহলে এটি হতে পারে উপযুক্ত।

স্পিটজঃ

সামান্য ব্যক্তি নির্ভরতা ছাড়া স্পিটজ হচ্ছে অনেকাংশে পোমেরানিয়ানের মতোই। এই কুকুরেরও খুব ভালো ব্যক্তিত্ব আছে এবং একজনের সাথে লেগে থাকতে ভালোবাসে। এগুলোকে একটি এপার্টমেন্টে অথবা ছোট বাড়িতে রাখা খুব সহজ এবং বেশি ব্যায়ামের প্রয়োজন হয় না। যদিও আপনি দেখবেন যে তাদের বিশ্রামের জন্যে কিছু সাহায্য প্রয়োজন। তাদের বেশি খাবারের প্রয়োজন নেই তাই ব্যয়বহুলও নয়। আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে যে এই ছোট কুকুরগুলো সামাজিক তাই তারা তাদেরকে আর সামাজিকীকরনের খুব বেমি দরকার নাই।। স্পিটজ হলো খুব সুন্দর ছোট কুকুর যা পোষা খুব সহজ এবং নিশ্চিতভাবে আপনাকে আনন্দ দিবে।

ল্যাব্রাডরঃ

ল্যাব্রাডর হলো একটি বড় জাতের কুকুর যা পানির খেলা এবং শিকারের জন্যে উপযুক্ত। তারা বাইরে যেতে ভালোবাসে এবং বেশি ব্যায়ামের প্রয়োজন হয়, তাই এটি কর্মঠ মানুষ বা পরিবারের জন্য উপযোগী। তাদের থাকার জন্যে তেমন বেশি জায়গার প্রয়োজন হয় না কারণ তারা অধিকাংশ সময় বাহিরে থাকে। এগুলো সবসময় হাস্যজ্জল তাই এগুলোকে খুব সহজে খাবার এবং খেলনা দিয়ে প্রশিক্ষিত করা যায়। তাদের বাহিরে যাওয়ার প্রবণতা সম্পন্ন এবং বন্ধুত্বসুলভ যে আপনি যেখানে থাকেন সেখানেই থাকতে পছন্দ করবে। এটি হচ্ছে খুব অভিযোজনশীল এবং সহজ পোষ্য প্রাণী। এরা বড় জাতের তাই এরা দীর্ঘায়ু হয় না। তবে এদের জন্যে একটু বেশি খাবারের প্রয়োজন হয়। তাই এরা কিছুটা ব্যয়বহুল। এটা খুব কমন হওয়ায় খুঁজে পাওয়া খুব সহজ যদি আপনি পছন্দ করেন তবে কিনতে খুব বেশি টাকা খরচ হবে না। সারাইল হাউন্ড এবং ইন্ডিয়ান পারিহা থেকে সহজে অতিমাত্রায় তপ্ত হবে তাই বাড়িতে সব সময় পানি রাখতে হবে। ল্যাবস আপনার পরিবারে অতিরিক্ত সুখ, আনন্দ নিয়ে আসবে এবং মজা করে বাহিরের কাজে সাহায্য করবে। যদি এসব আপনার পছন্দ হয় তবে আপনি একটি ল্যাব্রাডর নিতে পারেন।

নিশ্চিত হবেন যে যদি যে কুকুরটি আপনি কিনেছেন সেটি যদি বাংলাদেশে আমদানি করা হয় তবে পোষা প্রাণী বিশেষ করে কুকুর আমদানি আইন জানার জন্যে অনলাইনে চেক করুন। সেখানে কিছু গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম নীতি আছে যা আপনি একটি ফারি বন্ধু পাওয়ার আগে জানতে চাইবেন। অনলাইনে একাধিক সাইট আছে যেখানে আপনি কুকুর দেখতে পাবেন এবং কোথায় থেকে শুরু করবেন তা জানা কষ্টকর হতে পারে। বিক্রয় ডট কম হতে পারে এমন একটি সাইট যেখান থেকে আপনি শুরু করতে পারেন। এখানে আপনি এ ধরনের অনেক কুকুর পাবেন যেগুলো থেকে আপনি আপনার পছন্দ মতো কুকুরটি বেছে নিতে পারেন।

সাবস্ক্রাইব করুন

No spam guarantee.

Comments

comments