২০১৫ সালের ৫ টি সাশ্রয়ী ট্যাবলেট কম্পিউটার

Share

বর্তমানে ট্যাবলেট কম্পিউটারের দাম কমে যাওয়ায় তা মুল্য সচেতন ক্রেতাদের কাছে আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে। ট্যাবলেট কম্পিউটার আপনার ল্যাপটপের বিকল্প হতে পারে, এবং বড় আকারের পোর্টেবল বা বহনযোগ্য কম্পিউটার বহন করার চেয়ে একটি আইপ্যাড বা অন্য কোনো ট্যাবলেট ডিভাইস বহন করা অনেক সহজ। যেহেতু আপনি বাজারে একটি সাশ্রয়ী মুল্যের ট্যাবলেট খুঁজছেন, তার অর্থ এই নয় যে আপনি খুব সস্তা একটি ট্যাবলেট কিনবেন। অধিকাংশ ট্যাবলেটেই একটি বিল্ট-ইন ক্যামেরা রয়েছে, যা দিয়ে আপনি নিশ্চিন্তে আপনার বন্ধুদের সাথে ভিডিও চ্যাট করতে পারবেন। আপনার সময় অতি মূল্যবান, তাই আমরা বাজারের সেরা পাঁচটি ট্যাবলেট নিয়ে একটি তালিকা তৈরি করেছি। আমরা এই ডিভাইসগুলোকে সবচেয়ে বেশী দাম থেকে শুরু করে কম দামের ক্রম অনুযায়ী সাজিয়েছি।

আইপ্যাড মিনি

ট্যাবলেট কম্পিউটার নিয়ে আলোচনা সম্পুর্ণ হবে না যদি না অ্যাপেলের পণ্য নিয়ে আলোচনা করা হয়। আপনি যদি একটি আইপ্যাডই কিনতে চান তবে মিনি কেনাই আপনার জন্য ভালো হবে। এটি সুলভ মুল্যে পাবেন এবং বড় সংস্করণের সব ফিচারই এতে পাবেন। এই ডিভাইস দিয়ে সব কিছুই করতে পারবেন, কিন্তু এটি ততোটা সুলভ নয়। এই ডিভাইসটি দিয়ে আপনি অ্যাপ স্টোর থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারবেন, ইন্টারনেট সার্ফ করতে পারবেন, ই-মেইলের সুবিধা পাবেন এবং বন্ধুবান্ধব ও পরিবার পরিজনদের সাথে যোগাযোগ রাখতে পারবেন। এতে অনেক কাজের অ্যাপ কেনার সুযোগ রয়েছে, এবং ডকুমেন্ট ও মিডিয়া নিয়ে কাজ করার জন্য অনেক স্টোরেজ রয়েছে। এর উচ্চ রেজ্যুলেশনের স্ক্রিন অপ্রতিদ্বন্দ্বী এবং বাজারের অন্যতম সেরা। আপনি যদি এই ডিভাইসটির জন্য টাকা জমাতে পারেন তবে আপনি আশাহত হবেন না।

অ্যামাজন কিন্ডল ফায়ার এইচডিএক্স ৭

দাম অনুযায়ী এই ডিভাইসটি অত্যন্ত ভালো। এই ট্যাবলেটটির একটি শক্তিশালী প্রসেসর রয়েছে এবং মুহূর্তেই আপনি অ্যাপস, মিডিয়া, বই, এবং অন্যান্য কনটেন্টে প্রবেশ করতে পারবেন। এটি অসাধারণ কর্মক্ষমতার অধিকারী। পাতলা এবং সুন্দর গঠনের এই ডিভাইসটিতে ওয়েব পেজের কারণে কোনো সমস্যা হবে না। এতে আপনার কাজের জন্য নিজস্ব সিল্ক ব্রাউজার, ই-মেইল, ক্যামেরা এবং অন্যান্য অসংখ্য অ্যাপ রয়েছে। অধিকাংশ মোবাইল ট্যাবলেটের মতোই এতে আপনাকে অ্যাপ স্টোর ইন্সটল করতে হবে এবং কনটেন্ট সংযুক্ত করতে হবে। এতে ১৬ জিবি স্টোরেজ রয়েছে। অর্থাৎ, আপনি যদি চারটি এইচডি ম্যুভি ডাউনলোড করেন তবে আপনার সমস্ত স্টোরেজ পূর্ণ হবে। এর ন্যাভিগেশন বার দিয়ে শপ, গেমস, অ্যাপস, বই, মিউজিক, ভিডিও, নিউজস্ট্যান্ড, অডিওবুকস, ওয়েব, ছবি এবং অন্যান্য ডকুমেন্ট একটি মাত্র ক্লিকেই অ্যাক্সেস করতে পারবেন।

আসুস মেমো প্যাড ৮

যাদের বাজেটের সমস্যা রয়েছে তাঁরা অসংখ্য ফিচারসমৃদ্ধ এই ডিভাইসটি কিনতে পারেন। এটি অনেক হালকা-পাতলা এবং এর একটি রঙিন স্ক্রিন এবং সংবেদনশীল ইন্টারফেস রয়েছে। এই ট্যাবলেটটিতে অসংখ্য প্রি-লোডেড অ্যাপস রয়েছে যা কম দামের অনেক ট্যাবলেটেই পাবেন না। তাই যাদের কারিগরি জ্ঞানের সীমাবদ্ধতা রয়েছে তাঁদের জন্য এটি একটি ভালো উপহার হতে পারে। এছাড়াও, এতে অধিকাংশ ট্যাবলেট কম্পিউটারের স্টোরেজ সমস্যা অনেকটাই দূর করা হয়েছে ক্লাউড স্টোরেজে সহজ অ্যাক্সেস দিয়ে। এতে একটি মাইক্রোএসডি কার্ড স্লট রয়েছে যা দিয়ে স্টোরেজ ৬৪ জিবি পর্যন্ত বর্ধিত করা যাবে, যা ট্যাবলেট কম্পিউটারের জন্য অনেক জায়গা।

ডেল ভ্যেনু ৭

আপনি যদি সত্যিই সাশ্রয়ী মুল্যে ট্যাবলেট কিনতে চান তবে সেক্ষেত্রে ডেল ভ্যেনু ৭ অন্যতম সেরা। এই মুল্যে এর চেয়ে ভালো কিছু আর পাবেন না। যারা একটি ভালো, স্বল্প মুল্যের এবং দীর্ঘদিন টিকে থাকবে এমন জিনিস চাচ্ছেন তাঁদের জন্যই এটি ট্যাবলেট। এই ডিভাইসটির কভার হালকা এবং এটি অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমে চলে। এটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ কেননা অ্যান্ড্রয়েড একটি উন্নত অপারেটিং সিস্টেম যার সহায়তা ও নির্ভরযোগ্যতা প্রমানিত। এতে অ্যাপগুলো পূর্বেই ইন্সটল করা থাকে কিন্তু আপনি যদি কোনো সফটওয়্যার না চান তবে সহজেই আনইন্সটল করে মুছে ফেলতে পারবেন। প্রথম বছরের জন্য এই ট্যাবলেটটিতে ফ্রি ক্লাউড স্টোরেজের সুবিধা পাবেন যার ফলে আপনার ট্যাবলেটে অ্যাপস ও অন্যান্য অ্যাপ্লিকেশনের জন্য অনেক খালি জায়গা থাকবে।

অ্যামাজন ফায়ার এইচ ডি ৬

বাজারের সবচেয়ে সুলভ ট্যাবলেট এটি, কিন্তু এর ফলে আপনাকে সস্তা ট্যাবলেট কেনার কারণে পরবর্তীতে পস্তাতে হবে না। এটি অ্যামাজন কর্তৃক প্রচারিত (promoted), কিন্তু ডিভাইসটির পারফরমেন্স ভালো এবং এর অনেক পরিবার-বান্ধব ফাংশন রয়েছে। এতে ৮ জিবি ফ্রি স্পেস রয়েছে, তাই আপনি যদি অনেক মিডিয়া ফাইল সংরক্ষণ করতে চান তবে আপনাকে অনেক অ্যাপস মুছে ফেলতে হবে। এটি ছোটোখাটো গড়নের যা ঘোরাঘুরির জন্য আদর্শ, এবং আপনার পরিবার-পরিজন ও বন্ধুবান্ধবের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করার জন্য এতে সকল ফিচার রয়েছে। দীর্ঘ ব্যাটারি লাইফ নিশ্চিত করার জন্য এতে অনেক ব্যাটারি সেভিং ফিচার রয়েছে।
আপনার বাজেট যাই হোক না কেনো, আপনাকে আগে চিন্তা করতে হবে আপনি আপনার ট্যাবলেট থেকে কী চান। আপনি যদি সেটিকে আপনার কম্পিউটারের বিকল্প হিসেবে দেখতে চান তবে টাকা জমিয়ে দামী মডেলের ট্যাবলেট কিনুন। যারা শুধুমাত্র বই পড়া, ই-মেইল চেক করা, ওয়েব সার্ফ এবং পরিবার ও বন্ধুবান্ধবের সাথে যোগাযোগ রাখতে চান তাঁরা কমদামী মডেল কিনলে তাতেই কাজ চলবে।

সাবস্ক্রাইব করুন

No spam guarantee.

Comments

comments