চাকরি

ক্যারিয়ার হিসেবে এসইও | ২০২১ সালে কীভাবে এসইও ক্যারিয়ার গড়ে তুলবেন?

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (এসইও) অনেকের জন্যেই হতে পারে একটি দারুণ এবং জনপ্রিয় ক্যারিয়ার অপশন। আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে এটি তুলনামূলক নতুন এবং বৈচিত্র্যময় একটি প্ল্যাটফর্ম। এছাড়াও বর্তমানে যেভাবে সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করার মাধ্যমে প্রচুর কন্টেন্ট উপভোগ করা এবং অন্যান্য তথ্য খোঁজার হার বেড়ে গেছে, তাতে সন্দেহাতীতভাবেই এসইও-কে একটি চাহিদাসম্পন্ন পেশা বলা যেতে পারে। 

গত এক দশকে, ইন্টারনেট বাংলাদেশে বিজ্ঞাপনের অন্যতম প্রধান একটি মাধ্যম হয়ে উঠেছে। আগে যা সংবাদপত্র বা টেলিভিশন চ্যানেলে হতো, সময়ের সাথে সাথে, ইন্টারনেট ব্যবহার করে এমন কিছু মাধ্যম গড়ে উঠেছে যা দ্বারা বিভিন্ন ব্র্যান্ডগুলো তাদের গ্রাহকদের কাছে সহজে এবং আরও সাশ্রয়ীভাবে বিজ্ঞাপন পৌঁছে দিতে পারছে। এই অনলাইন বা ডিজিটাল মার্কেটিং-এর একটি অংশ হলো এসইও। 

একজন এসইও এক্সপার্ট বা বিশেষজ্ঞ একটি প্রতিষ্ঠানের যাবতীয় কন্টেন্ট পরিচালনা করে থাকেন এবং পাশাপাশি তা যাতে সার্চ রেজাল্টে ভালো র‍্যাঙ্কিংয়ে থাকে তা নিশ্চিত করেন। 

তাহলে একজন এসইও এক্সপার্ট হিসেবে কীভাবে ক্যারিয়ার গড়তে পারবেন? আজকের লেখায়, আমরা আপনার প্রায় সব প্রশ্নের উত্তর প্রদান করবো যা আপনাকে এসইও সম্পর্কে একটি সুস্পষ্ট ধারণা পেতে এবং বাংলাদেশে এসইও চাকরি খুঁজে পেতে সাহায্য করবে।

একজন এসইও এক্সপার্ট কী কী কাজ করে থাকেন? 

একজন এসইও এক্সপার্ট মূলত একটি ব্যবসা বা ব্র্যান্ডের কন্টেন্টগুলোকে গুগল এবং বিং এর মতো সার্চ ইঞ্জিনে ভালো র‍্যাংক করতে সহায়তা করে থাকেন। বিভিন্ন প্লাটফর্মে ব্যবহারকারীরা যেধরণের কীওয়ার্ড ব্যবহার করে সার্চ করে থাকে সেগুলো বের করা এবং প্রয়োগ করার জন্য কীওয়ার্ড রিসার্চ করা ছাড়াও কন্টেন্টের মান আরও উন্নত করার জন্য কার্যকর প্ল্যানিংও দিতে হয় এসইও এক্সপার্টদের।

এসইও এক্সপার্টরা কম্পিটিটরদের কন্টেন্টগুলো সার্চ ইঞ্জিনের রেজাল্টে কেমন অবস্থানে আছে তা বের করে থাকেন এবং কীভাবে তাদের সাথে প্রতিযোগিতা করা যায় তার উপায় নির্ধারণ করে থাকেন। পাশাপাশি এসইও এক্সপার্টদের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ কাজের মধ্যে রয়েছে এসইও-বান্ধব ওয়েবসাইট ডিজাইন করা এবং কন্টেন্টের অবস্থান জানার কৌশল হিসেবে কিছু পরিসংখ্যান নিয়মিত ট্র্যাক করা। 

এসইও এক্সপার্টদের প্রধান কিছু কাজ 

  • বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিনে কন্টেন্ট কীভাবে ভালো র‍্যাংক করতে পারে সে বিষয়ে বিস্তারিত কৌশলগত প্রতিবেদন তৈরি করা
  • পুরো ওয়েবসাইট অডিট করে যেসব ক্ষেত্রে আরও ভালো করা যেতে পারে তা খুঁজে বের করা
  • রিসার্চ করার মাধ্যমে নতুন কীওয়ার্ড খুঁজে বের করা
  • প্রতিষ্ঠানের অন্যান্য ডিপার্টমেন্টকে এসইও সম্পর্কিত যাবতীয় নির্দেশনা দেওয়া 
  • কম্পিটিটরদের এসইও কৌশল বিশ্লেষণ করা 

এসইও-তে ক্যারিয়ার গড়ার জন্য প্রয়োজনীয় দক্ষতা

এসইও ক্যারিয়ার গড়ার জন্য আপনার কিছু দক্ষতা থাকা প্রয়োজনীয়।

এসইও এক্সপার্টদের জন্য প্রয়োজনীয় স্কিল

১. অন-পেজ ও অফ-পেজ এসইওঃ এসইও মূলত দুই ধরণের হয়ে থাকেঃ অন-পেজ ও অফ-পেজ। অন-পেজ এসইও হলো আপনার ওয়েবসাইটের বিভিন্ন প্রকার কন্টেন্ট যেমনঃ ছবি, টেক্সট, ভিডিও, মেটা ইনফরমেশন, কন্টেন্ট স্ট্রাকচার-কে সার্চ ইঞ্জিনের জন্য অপ্টিমাইজ করা যাতে সেগুলো সার্চ রেজাল্টে ভালো র‍্যাঙ্কিংয়ে থাকে। অন্যদিকে, অফ-পেজ এসইও হলো কীভাবে আপনার ওয়েবসাইটের বাহ্যিক তথ্যের ভিত্তিতে অন্যান্য ওয়েবসাইট থেকে কোয়ালিটি ব্যাকলিংক আনার মাধ্যমে ওয়েবসাইটের বিশ্বাসযোগ্যতা ও প্রাসঙ্গিকতা বাড়ানো যেতে পারে। 

২. কীওয়ার্ড ও কম্পিটিটর রিসার্চঃ একজন এসইও এক্সপার্ট হিসেবে আপনাকে এসইও ফ্রেন্ডলি ওয়েবসাইট কন্টেন্ট তৈরি করার জন্য কীওয়ার্ড রিসার্চ করতে জানতে হবে। এছাড়াও অন্যান্য কম্পিটিটরদের বিশ্লেষণ করা এবং তাদের থেকে Search Engine Results Pages বা এসইআরপি তে কীভাবে এগিয়ে থাকা যায় তা নির্ধারণ এবং প্রয়োগ করতে প্রতিষ্ঠানকে সাহায্য করতে হবে।

৩. কন্টেন্ট মার্কেটিংঃ কন্টেন্ট হলো ডিজিটাল মার্কেটিং এর মুখ্য বিষয় এবং ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে ক্যারিয়ার গড়ার জন্য আপনাকে কন্টেন্ট মার্কেটিংয়ে সাবলীল হতে হবে। একজন এসইও এক্সপার্ট হওয়ার কারণে আপনাকে জানতে হবে কীভাবে মানসম্পন্ন এবং এসইও ফ্রেন্ডলি কন্টেন্ট তৈরি করতে হয় যা আপনার ভিজিটরদের অনায়াসেই আকৃষ্ট করবে।

৪. ডাটা ও অ্যানালিটিক্সঃ এসইও সাধারণত একটি ডাটা বা তথ্য চালিত স্কিল। কোন কন্টেন্ট সবচেয়ে বেশি ট্রাফিক বা ভিজিটর পাচ্ছে এবং কোন কন্টেন্টগুলো অপ্টিমাইজ করা প্রয়োজন তা জানতে আপনাকে অবশ্যই গুগল অ্যানালিটিক্সের মতো টুলসের ব্যবহার জানতে হবে। এছাড়াও আপনার ওয়েব পেজ কীভাবে Search Engine Results Pages বা এসইআরপি-তে পারফর্ম করছে তা লক্ষ্য করার জন্য আপনাকে গুগল সার্চ কনসোলের ব্যবহারও জানতে হবে।

৫. এইচটিএমএল, জেএস, সিএসএস (HTML, JS, CSS): যদিও জটিল এবং হেভি প্রোগ্রামিং সরাসরি এসইও চাকরির সাথে সম্পৃক্ত নয়, তবে এইচটিএমএল, জেএস এবং সিএসএস সম্পর্কে সঠিক জ্ঞান থাকা আপনাকে এসইও এক্সপার্ট হিসাবে আপনার কর্মক্ষেত্রে জটিল কিছু সমস্যার সমাধান করতে সহায়তা করবে। 

 এসইও এক্সপার্টদের জন্য প্রয়োজনীয় সফট স্কিল

এসইও ক্যারিয়ার গড়ার জন্য, আপনাকে কেবল টেকনিক্যাল স্কিলে এগিয়ে থাকলে হবে না। কিছু সফট স্কিল আপনাকে বাংলাদেশে এসইও ক্যারিয়ার শুরু করার ক্ষেত্রে অন্যদের তুলনায় এগিয়ে রাখতে পারে। একজন এসইও এক্সপার্ট হিসাবে আপনার যেসকল সফট স্কিল থাকা উচিতঃ 

১. কিউরিওসিটি বা কৌতূহলঃ আমাদের দেশে ডিজিটাল মার্কেটিং চাকরির পরিসর প্রতিনিয়ত বিকশিত হচ্ছে। অর্থাৎ একজন মার্কেটার হিসেবে আপনাকে ক্রমাগত শেখার প্রক্রিয়ায় মধ্যে থাকতে হবে এবং নিত্যনতুন এসইও আপডেটগুলো চর্চার মাধ্যমে নিজেকে এগিয়ে রাখতে হবে। গত কয়েক বছর ধরে এসইও উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি এবং পরিবর্তনের মধ্যে দিয়ে চলেছে। সুতরাং কয়েক বছর আগে আপনি এই সম্পর্কিত যে দক্ষতাগুলো অর্জন করেছিলেন তা বর্তমানে এসে প্রাসঙ্গিক নাও হতে পারে।

২. টিমওয়ার্কঃ এসইও মূলত একটি টিম গেম বা দলগত কাজ। আপনাকে প্রতিষ্ঠানের ডিজিটাল মার্কেটিং ডিপার্টমেন্টের সাথে একত্রে কাজ করতে হবে। প্রকৃতপক্ষে, আপনার চিন্তাভাবনা কন্টেন্ট রাইটার, কন্টেন্ট প্ল্যানার এবং ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে কাজ করা অন্যদের সাথে সমন্বয় করতে হবে। সর্বোপরি এই ক্ষেত্রে একটি টিম বা দলের অংশ হিসাবে কার্যকরভাবে আপনার কাজ সম্পাদন করতে হবে।

৩. সমস্যা সমাধানের দক্ষতাঃ একজন এসইও এক্সপার্ট হিসাবে, আপনি বেশ কিছু সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন। উদাহরণস্বরূপ, যখন আপনি বুঝতে পারেন যে আপনার একটি কন্টেন্ট আশানুরূপ র‍্যাঙ্কিং করছে না, সেই সময়ে আপনাকে বর্তমান অবস্থানটি চিহ্নিত করা এবং সেই অনুযায়ী কার্যকরী একটি সমাধান বের করতে হবে। তবে এধরণের বড় কোনো সমস্যা থাকলে তা ভেঙে ভেঙে ছোট করে নিলে দ্রুত সমাধান করা যেতে পারে। 

কীভাবে শিখবেন এসইও?

আপনি যদি বাংলাদেশে এসইও চাকরির খোঁজে থাকেন, তাহলে আপনাকে কাজের প্রয়োজনীয়তার উপর ভিত্তি করে কিছু এসইও টেকনিক বা কৌশল শিখতে হবে। যেহেতু বর্তমানে দেশের কোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সরাসরি ডিজিটাল মার্কেটিং-এর উপরে কোনো স্নাতক ডিগ্রি দেওয়া হয় না, তবে কিছু এসইও এক্সপার্টরা মার্কেটিং, বিজনেস ডেভেলপমেন্ট বা অন্যান্য সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে ডিগ্রী অর্জনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগদান করে থাকেন।

এছাড়া কোনো ইনস্টিটিউটে যাওয়ার পরিবর্তে, আপনি নিজেই এই ইন্ডাস্ট্রি সম্পর্কে পড়াশোনা করতে পারেন এবং বাংলাদেশে এসইও চাকরি খুঁজে পেতে পারেন। পাশাপাশি কিছু ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি এসইও টেকনিকগুলো বিস্তারিতভাবে শিখতে এবং ব্যবহার করতে পারেন।

কীভাবে হয়ে উঠবেন একজন এসইও এক্সপার্ট?

বাংলাদেশে এসইও ক্যারিয়ার নিয়ে যাত্রা শুরু করার জন্য আপনি বেশ কিছু কয়েকটি পদক্ষেপ নিতে পারেন। যার মধ্যে রয়েছেঃ 

  • কিছু কোর্সের মাধ্যমে এসইও সম্পর্কে জানুন, নিজেই পড়াশোনা করুন, অথবা আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে সেগুলো চর্চা করুন
  • নিয়মিত নতুন টেকনিক্যাল স্কিল খুঁজুন এবং অনুশীলন করুন
  • আপনার ডিজিটাল মার্কেটিং পোর্টফোলিও তৈরি করুন
  • চাকরি খোঁজা শুরু করুন
  • ইন্টারভিউ কলের জন্য প্রস্তুতি নিন

শেষকথা

একজন এসইও এক্সপার্ট হিসেবে ক্যারিয়ার গড়া আপনার সামনে একটি বিশাল সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন করে দিতে পারে। যেখানে আপনি বড় বড় ব্র্যান্ড অথবা এসএমইগুলোকে তাদের অনলাইন ব্যবসার সমৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন।

এসইও ক্যারিয়ারে ভালো করার ক্ষেত্রে অনেক স্কিল এবং অনুশীলন রয়েছে, যা আপনাকে নিয়মিত চর্চা করার মাধ্যমে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে এবং এর প্রায় সব কিছুই শুরু হয় সততা, ধৈর্য এবং জ্ঞান আহরণের তৃষ্ণা থেকে।

আমরা আশা করি আজকের লেখাটি আপনাকে এসইও ক্যারিয়ার সম্পর্কে জানতে কিছুটা হলেও সাহায্য করেছে এবং বাংলাদেশে এসইও চাকরিতে প্রবেশের ক্ষেত্রে অন্যদের তুলনায় এগিয়ে রাখবে।

আপনার জন্য শুভকামনা! 

Facebook Comments
সাবস্ক্রাইব করুন

No spam guarantee.

আরও দেখুন

অনুরূপ লেখা গুলো

Back to top button
Close
Close