টিপস ও গাইডযানবাহন

বর্ষায় গাড়ির যত্নে ৭টি টিপসঃ ড্রাইভিং হোক নিরাপদ 

বর্ষা মৌসুমে ভারী বৃষ্টিপাত এবং বজ্রপাতের কারণে গাড়ির চালকেরা বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হয়ে থাকেন। নিয়মিত ভিত্তিতে গাড়ি সার্ভিসিং করা অপরিহার্য হলেও, প্রতিবার বৃষ্টিপাতের পরে গাড়ি গ্যারেজে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়ে উঠে না। আর ঠিক এই কারণেই কিছু কৌশল অবলম্বন করে আপনার গাড়িকে বর্ষাকালে জল এবং অন্যান্য ক্ষয়ক্ষতি থেকে রক্ষা করার উপায় সম্পর্কে জানতে হবে।

বাংলাদেশের জনপ্রিয় অনলাইন যানবাহন কেনা-বেচার প্ল্যাটফর্ম Bikroy.com আপনার আরাম ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে গাড়ির যত্নের কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস নিয়ে এসেছে। এছাড়াও, যদি আপনি গাড়ি কেনার কথা ভেবে থাকেন তাহলে আমাদের আজকের লেখার মাধ্যমে জেনে নিতে পারবেন বাংলাদেশে গাড়ির দাম সম্পর্কিত অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য। তাহলে চলুন দেরী না করে শুরু করা যাক।

বর্ষায় গাড়ির যত্ন

দুর্ভাগ্যবশত আপনার গাড়ির সাথে অনাকাঙ্ক্ষিত কিছু ঘটতেই পারে, বিশেষ করে বর্ষাকালে। এরকম পরিস্থিতিতে আপনাকে কিছু টিপস আয়ত্তে রাখতে হবে যা আপনি ও আপনার পরিবারকে এবং গাড়িকে নিরাপদ রাখতে সহায়ক হবে। দেখে নিন বর্ষায় গাড়ির যত্ন নেওয়ার কয়েকটি টিপসঃ

১. উইন্ডশিল্ড পরিষ্কার রাখুন

গাড়ির উইন্ডশিল্ড এবং অন্যান্য আয়নাগুলোকে নিয়মিত পরিষ্কার করার ব্যাপারটিকে অনেকেই উপেক্ষা করে থাকেন। এছাড়াও বৃষ্টির রাতে গাড়ি চালালে আপনাকে আয়নাতে জমা ধুলো এবং কাদার কথা খেয়াল রাখতে হবে। কারণ পরদিন সূর্যের আলোতে শুকিয়ে জলের ছিটা ময়লায় রূপান্তরিত হতে পারে।

নোংরা আয়না ব্যবহার করে গাড়ি চালালে এটি আপনাকে সামনে কী আছে তা অস্পষ্ট করে তুলবে, আবার এই অবস্থায় পুনরায় বৃষ্টি হলে পানির ফোঁটা ময়লার সাথে লেগে গাড়ি চালানোর সময় আরও সমস্যা তৈরি করতে পারে।

তাই নতুন গাড়ি হোক বা ব্যবহৃত, অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে আপনার আয়না এবং উইন্ডশিল্ড পরিষ্কার রাখা গুরুত্বপূর্ণ।

২. গাড়ির লাইট লক্ষ্য করুন 

ভারী বৃষ্টিপাতের সময়, আপনার গাড়ির লাইটই আপনাকে পথ দেখাবে। এই লাইটগুলো শুধু আপনার দেখার সক্ষমতাই বৃদ্ধি করবে না, বরং অন্য প্রান্ত থেকে আসা যানবাহনের কাছেও আপনার অবস্থান পরিষ্কার করবে। আর এই কারণে আপনার গাড়ির লাইটের প্রতি বাড়তি মনোযোগ দিতে হবে, বিশেষ করে বর্ষাকালে। নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনার গাড়ির লাইটগুলো সঠিকভাবে কাজ করছে।

লাইটের দৃশ্যমানতা পরীক্ষা করার জন্য হেডলাইট, ফগ লাইট, হ্যাজার্ড লাইট, টেইল লাইট, ইন্ডিকেটর ইত্যাদি লাইটগুলো জ্বালান। লাইট জ্বলা অবস্থায় যদি কোনও অসঙ্গতি লক্ষ্য করেন তাহলে বুঝতে হবে হয়তো বাল্বগুলো পরিবর্তন করার সময় এসেছে।

এছাড়াও, আপনি প্রতিবার গাড়ি নিয়ে বের হওয়ার আগে গাড়ির সবগুলো বাল্ব পরিষ্কার করে নিতে পারেন।

৩. উইন্ডশিল্ড ওয়াইপার

বাংলাদেশের বেশিরভাগ সময় উষ্ণ আবহাওয়া বিরাজ করে। আর এই সময়ে অতিরিক্ত তাপের কারণে আপনার গাড়ির উইন্ডশিল্ডের রাবার ফেটে সেটি ভেঙে যেতে পারে।

তাই বর্ষাকাল আসার আগেই গাড়ির ওয়াইপার চেক করে নিন। গাড়িতে ওয়াইপার রিপ্লেস করা যদিও তেমন কঠিন না এমনকি আপনি নিজেও এটি করতে পারেন। এছাড়াও ওয়াইপার ঠিকঠাক কাজ করছে কিনা বুঝার জন্য আপনার গাড়িতে পর্যাপ্ত ওয়াশার ফ্লুইড স্টক নিশ্চিত করে নিন।

৪. ব্যাটারি

গাড়ির যত্ন নেওয়ার টিপসগুলোর মধ্যে এটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ। বৃষ্টিতে গাড়ি চালাতে অন্যান্য দিনের তুলনায় বেশি ব্যাটারির প্রয়োজন হয়। পাশপাশি এসময়ে ঠান্ডা এবং ভেজা আবহাওয়া আপনার গাড়ির ব্যাটারিকেও কঠিন অবস্থায় ফেলতে পারে।

গাড়ি স্টার্ট করার সময় ছোট ছোট সমস্যাগুলো লক্ষ্য করুন, যেমন হেডলাইটের আলো ম্লান হওয়া বা স্টার্ট নিতে সমস্যা। আপনি যদি একটি নতুন ব্যাটারি লাগিয়ে থাকেন, তাহলে বর্ষার আগেই ব্যাটারি রিচার্জ করতে পারেন। আর ব্যাটারির বয়স কয়েক বছর হয়ে গেলে ধরে নিতে হবে যে এটি পরিবর্তন করার সময় এসেছে।

৫. টায়ার এবং ব্রেক

বর্ষাকালে আমাদের দেশে বেশিরভাগ দুর্ঘটনা ঘটে অপরিশোধিত টায়ারের কারণে। রাস্তা ভেজা এবং পিচ্ছিল হয়ে গেলে গাড়িকে সঠিকভাবে থামাতে সাধারণত আপনার ব্রেক এবং টায়ার-এর কিছুটা বেশি শক্তি প্রয়োজন হয়। এছাড়াও ক্ষয়ে যাওয়া ও পুরোনো টায়ার বেশ বিপজ্জনক কারণ এর ফলে সঠিক মুহূর্তে গাড়ি থামানো কঠিন। এজন্যেই বর্ষাকালে গাড়ির যত্নের একটি গুরুত্বপূর্ণ টিপস হলো নিয়মিত আপনার টায়ার পরীক্ষা করা।

ভেজা রাস্তা আর শুকনো রাস্তার মধ্যে গাড়ি চালানোর ক্ষেত্রে পার্থক্য আছে। কিছুক্ষেত্রে আপনাকে সাধারণ অবস্থায় ব্রেক ব্যবহার করার কিছুটা আগে ব্রেক করতে হবে কারণ পানি ব্রেক এবং টায়ারের মধ্যে ঘর্ষণ কমিয়ে দেয়। পাশাপাশি গাড়ির ব্রেক সঠিকভাবে কাজ করছে কিনা তা নিয়মিত পরীক্ষা করুন, যদি সমস্যা রয়েছে বলে মনে হয় তবে আপনার নিকটস্থ সার্ভিসিং সেন্টারে যোগাযোগ করুন।

৬. এসি

যেহেতু বৃষ্টিতে গাড়ি চালানোর সময় গাড়ির জানালা এবং সানরুফ বন্ধ করে রাখতে হয়, তাই আপনাকে ভেতরের বাতাস থেকেই নিঃশ্বাস নিতে হবে। এই পরিস্থিতি এড়াতে, এসি সঠিকভাবে কাজ করছে কিনা তা নিশ্চিত হয়ে নিন। এসি ব্যবহারের মাধ্যমে বাইরে থেকে ফ্রেশ বাতাস আসলে দমবন্ধ পরিস্থিতি এড়ানো সম্ভব হবে।

গাড়ির যত্ন নেওয়ার প্রয়োজনীয় টিপসগুলোর মধ্যে একটি হওয়ায়, বর্ষাকাল আসার আগেই আপনার গাড়ির এসির ফিল্টারগুলো সঠিকভাবে পরিষ্কার করে ফেলুন।

৭. স্পেয়ার পার্টস সঙ্গে রাখুন

আবহাওয়া হঠাৎ অপ্রত্যাশিত আচরণ করতে পারে এবং ভাগ্য খারাপ হলে রাস্তার পাশে সার্ভিসিং সেন্টারও পাওয়া যাবে না। আর তাই গাড়ির যত্ন নেওয়ার ক্ষেত্রে খুচরা যন্ত্রাংশ এবং ইমার্জেন্সি কিটস সাথে রাখা বেশ প্রয়োজনীয় একটি টিপস।

অনেকেই স্পেয়ার পার্টস বলতে শুধু একটি অতিরিক্ত চাকা বুঝে থাকেন তবে শুধু চাকাই নয় আপনার সাথে অতিরিক্ত উইন্ডশিল্ড ওয়াইপার, ছাতা, পাওয়ার ব্যাঙ্ক, ওষুধ, বুট ইত্যাদিও রাখা যেতে পারে।

পরিশেষ

সর্বোপরি উপরে উল্লেখিত টিপসগুলো সম্পর্কে আপনার ভালো ধারণা না থাকলে, বর্ষাকাল আসার আগেই আপনি গাড়ি সার্ভিসিং করিয়ে নিতে পারেন।

আমরা আশা করি আমাদের আজকের এই গাড়ির যত্ন নেওয়ার টিপসগুলো আপনার প্রয়োজনীয় সকল প্রশ্নের সমাধান দিতে পারবে। বাংলাদেশের গাড়ির বাজার সম্পর্কে আরও জানতে ঘুরে আসুন Bikroy.com।

আপনার নিরাপদ যাত্রা কামনা করছি!

ঢাকা এ বিক্রির জন্য গাড়িচট্টগ্রাম এ বিক্রির জন্য গাড়ি
ঢাকা বিভাগ এ বিক্রির জন্য গাড়িখুলনা বিভাগ এ বিক্রির জন্য গাড়ি
সিলেট এ বিক্রির জন্য গাড়িচট্টগ্রাম বিভাগ এ বিক্রির জন্য গাড়ি
Facebook Comments
সাবস্ক্রাইব করুন

No spam guarantee.

আরও দেখুন

অনুরূপ লেখা গুলো

Back to top button
Close
Close