মোবাইল ফোন রিভিউ: ব্ল্যাকবেরি পাসপোর্ট

ব্ল্যাকবেরি পাসপোর্ট হলো ব্ল্যাকবেরি লিমিটেডের ডিজাইনকৃত ব্ল্যাকবেরি ১০-এর একটি মডেল। একে ফ্যাবলেট (phablet) হিসেবেই ধরা হয়, কেননা এতে স্মার্টফোন ও ট্যাবলেট উভয়েরই বিভিন্ন ফিচার উপস্থিত। এই ডিভাইসটি অন্যদের থেকে আলাদা, কারণ এর ডিসপ্লেটি বর্গাকৃতির যার পরিমাপ কোনাকুনিভাবে ৪.৫ ইঞ্চি। এর একটি ফিজিক্যাল কীবোর্ড রয়েছে যা টাচপ্যাড হিসেবেও ব্যবহার যায়।

পাসপোর্টের বর্গাকৃতির কারণে এটি ধরা ও অনেকক্ষণ ধরে টাইপ করা অপেক্ষাকৃত সহজ। এর আরকটি সুবিধা হচ্ছে এটি বেশ হালকা এবং এর ওজন মাত্র ৬.৯ আউন্স। যেহেতু ফোনটি একদমই ভারী নয় তাই দৈনন্দিন ব্যবহারে এটি বহন করা অনেক সহজ। যদিও এটি হালকা তবু এর গঠন বেশ ভালো এবং মানুষ মোবাইল ফোনের গঠন যেমনটি আশা করে এর গঠন তেমনই মজবুত। আপনি যদি এর আগে ব্ল্যাকবেরি ফোন, যেমন- ব্ল্যাকবেরি পার্ল, ব্ল্যাকবেরি কার্ভ বা ব্ল্যাকবেরি স্টোর্ম ব্যবহার করে থাকেন তবে আপনি অবশ্যই ব্ল্যাকবেরি পাসপোর্ট কিনতে চাইবেন।

ব্ল্যাকবেরি পাসপোর্টের ডিসপ্লে রেজ্যুলেশন ১৪৪০×১৪৪০ পিক্সেল। এর পিক্সেলের ঘনত্ব ইঞ্চি প্রতি ৪৫৩ পিক্সেল। এর স্ক্রিন দেখতে খুব সুন্দর। এর চওড়া স্ক্রিনের কারণেই মানুষ এই ডিভাইসটি ব্যবহার করতে বেশী আগ্রহী হবে। এর স্ক্রিন এতটাই চওড়া যে এর প্রতিটি লাইন ৬০ টি পর্যন্ত ক্যারেক্টার ডিসপ্লে করতে পারে। আপনি অনলাইনে অনেক সময় ব্যয় করলে পাসপোর্ট ডিভাইসটি আপনার জন্য আদর্শ। পাসপোর্টের ডিসপ্লের বড় আকারের কারণে ওয়েবসাইটে কোনো কিছু পড়া আপনার জন্য বেশ মজার হবে। বর্তমানে বাজারের অধিকাংশ স্মার্টফোনের মতো আপনার পছন্দের ওয়েবসাইটের অনেক বেশী টেক্সট পড়লে আপনার চোখের ক্লান্তি আসবে না বা চোখের উপর চাপ পড়বে না। তাছাড়া একই সময়ে আপনার স্ক্রিনে অনেক বেশী টেক্সটের জায়গা হবে। আপনার দেখার সুবিধার জন্য আপনাকে জুম ইন করতে হবে না বা ল্যান্ডস্কেপ মোডে যেতে হবে না।

আপনি যদি স্মার্টফোনে ভিডিও ও ছবি দেখতে পছন্দ করেন তবে মনে রাখবেন, এ দু’টির কথা মাথায় রেখেই ব্ল্যাকবেরি পাসপোর্ট ডিজাইন করা হয়েছে। আপনি ছবি বা ভিডিও দেখলে তা উজ্জ্বল ও প্রানবন্ত দেখাবে। আপনি যেই কোণ থেকেই দেখুন না কেন এসব ছবির রঙের কোনো পরিবর্তন হবে না। যদি আপনি ডিসপ্লের রঙ নিয়ে সন্তুষ্ট হতে না পারেন তবে ডিসপ্লেতে যেয়ে কালার সেটিংস-এ স্যাচুরেশন ও হোয়াইট ব্যাল্যান্স আপনার পছন্দ অনুযায়ী পরিবর্তন করে নিতে পারবেন। এর আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লের কারণে অফিসের ভেতরে বা বাইরে যেখানেই ব্যবহার করুন না কেন একইরকমভাবে ভালো দেখতে পাবেন। যদিও, অধিকাংশ স্মার্টফোনেই সরাসরি সূর্যের আলোতে দেখতে সমস্যা হয়।

ব্ল্যাকবেরি অনেক বছর ধরেই কীবোর্ড সহ স্মার্টফোন ও অন্যান্য ডিভাইস তৈরি করার জন্য বিখ্যাত। যদিও, পাসপোর্টের কীবোর্ড অন্যান্য জনপ্রিয় ব্ল্যাকবেরি মডেলের মতো নয়। ব্ল্যাকবেরি ব্যবহারকারীরা যেখানে কীবোর্ডের বাটনের চারটি সারি দেখে অভ্যস্ত সেখানে ব্ল্যাকবেরি পাসপোর্টে রয়েছে তিনটি সারি। এটি ভার্চুয়াল ও সত্যিকারের কীবোর্ডের এক চমৎকার সংমিশ্রণ। ডিসপ্লের একদম নীচে এর ব্যবহারকারীরা বাটনের একটি সারি দেখতে পাবেন যা কন্টেক্সট সংবেদনশীল।

ব্ল্যাকবেরি পাসপোর্ট, ব্ল্যাকবেরি ওএস ১০.৩ অপারেটিং সিস্টেমে চলে। অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের জন্য যেসব অ্যাপ্স রয়েছে তা ব্ল্যাকবেরি পাসপোর্টে চলবে। এতে প্রি-ইন্সটলড অ্যামাজন অ্যাপ স্টোর রয়েছে। আপনাকে যা করতে হবে তা হচ্ছে শুধু অ্যাপ স্টোরে ঢুকবেন এবং অন্যান্য অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের মতো অ্যাপ ডাউনলোড করা শুরু করবেন। আরও অ্যাপস পেতে আপনি ব্ল্যাকবেরি অ্যাপ ওয়ার্ল্ড ডাউনলোড ব্যবহার করতে পারেন। অবশ্য ব্ল্যাকবেরির বিখ্যাত বিবিএম ফিচারটিও পাসপোর্টে পাবেন। এর একটি চমৎকার ফিচার হচ্ছে, আপনার বন্ধুরা উইন্ডোজ ফোন, অ্যান্ড্রয়েড বা আইওএস ব্যবহার করলেও বিবিএম-এ আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন।

ব্ল্যাকবেরি ১০.৩ অপারেটিং সিস্টেমের ফাংশন এর ব্যবহারকারীদের হতাশ করবে না। যতদিন ব্ল্যাকবেরি রয়েছে, ততদিন এরা অসাধারণ ম্যাসেজিং এবং ই-মেইল পরিষেবার জন্য পরিচিত থাকবে। “ইনস্ট্যান্ট অ্যাকশনস” (“Instant Actions”) নামে এর একটি সাইডবার রয়েছে যা দ্রুত ম্যাসেজের উত্তর দেওয়ার জন্য ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়াও এই ফিচারটি ব্যবহার করে আপনি ই-মেইল ডিলিট করতে বা আলাদা ফোল্ডারে রাখতে পারবেন। “প্রায়োরিটি হাব” (“Priority Hub”) ব্যবহার করে আপনি আপনার ম্যাসেজ ও ই-মেইল গুছিয়ে রাখতে পারবেন। যেসব ম্যাসেজ আপনার কাছে গুরুত্বপূর্ণ সেসব ম্যাসেজ আপনি ফ্ল্যাগ মার্ক করে রাখতে পারবেন এবং সেগুলো আপনার প্রায়োরিটি হাবে চলে যাবে যাতে আপনি তাড়াতাড়ি সেগুলো পড়তে পারেন।

ব্ল্যাকবেরি পাসপোর্টের স্ট্রিমলাইনড ইন্টারফেস রয়েছে। এটি ডিভাইসটি ব্যবহার অনেক সহজ ও ঝামেলামুক্ত করেছে। আপনাকে কোনো অ্যাপের সেটিংস-এ ঢুকতে কেবল একটি আঙুল দিয়ে ডিসপ্লের উপর থেকে নীচের দিকে সোয়াইপ করলেই চলবে। দুই আঙুল ব্যবহার করে সোয়াইপ করলে ফোনের জেনারেল সেটিংস দেখতে পাবেন। অ্যাপ মিনিমাইজ করতে শুধু স্ক্রিনের নীচ থেকে উপর দিকে সোয়াইপ করলেই হবে। পাসপোর্টে আপনি একসাথে সর্বোচ্চ আটটি অ্যাপ একসাথে খুলে রাখতে পারবেন।

পাসপোর্টে ব্ল্যাকবেরি অ্যাসিস্ট্যান্ট ফিচারটি রয়েছে। এটি আইফোনের সিরি (Siri)-এর ব্ল্যাকবেরি ভার্শন। সিরি যেভাবে কাজ করে এটিও তেমনি কাজ করে। ই-মেইল পাঠাতে, আপনার ক্যালেন্ডারের তারিখ ঠিক করতে, টেক্সট ম্যাসেজ পাঠাতে, নোট লিখতে এবং আরও অনেক কিছু করার জন্য এই অ্যাসিস্ট্যান্ট ব্যবহার করতে পারবেন। আপনি যদি কোনো খেলার বর্তমান স্কোর জানতে চান তবে, আপনার পছন্দের খেলার স্কোর জানতে চাইলেই হবে, অ্যাসিস্ট্যান্ট চলতি সকল খেলার স্কোর আপনাকে জানিয়ে দেবে, এবং দিনের অন্যান্য খেলার সময়ও জানতে পারবে।

Comments

comments