প্রাচীন বা অ্যান্টিক জিনিসপত্র সংগ্রাহ করতে হলে যা জানা প্রয়োজন

আপনার বাড়িটি অজস্র আসবাবপত্র দিয়ে ভরিয়ে ফেলতে অথবা নিতান্তই আপনার বাড়ির কোনো কক্ষের সাজসজ্জার জন্য আপনি যদি কোনো প্রাচীন জিনিসপত্র সংগ্রহে আগ্রহী হন তবে আপনার বাড়িটিকে সত্যিকার অর্থেই ‘আপন আলয়ে’ পরিণত করতে বেছে নেয়ার মত অনেক বিকল্প রয়েছে।

প্রাচীন জিনিসপত্র কী?

প্রাচীন জিনিসপত্র হলো সেই সব জিনিস যেগুলো এখন আর উৎপাদিত হয় না, অথবা যেগুলোর প্রচলন বহু বছর, বহু দশক, এমনকি বহু শতাব্দি আগেই বন্ধ হয়ে গেছে। আসবাবপত্র, সংগ্রহযোগ্য জিনিসপত্র এবং গৃহসজ্জায় ব্যবহারযোগ্য উপাদানের মত প্রাচীন জিনিসপত্র পাওয়া যায়, যেগুলো বসার ঘরে সাজিয়ে রাখার মত। অনেক প্রাচীন জিনিসপত্রের নির্মাণকালের হদিস পাওয়া যায় না এবং সেগুলো গণহারে তৈরিও করা হয়নি বা কোনো পাইকরি বিক্রেতার নিকট থেকেও আসে নি। বরং গৃহসজ্জায় ব্যবহৃত অনেক প্রাচীন জিনিসপত্র মানসম্পন্ন উপদানে কারিগরদের হাতে তৈরি হয়েছিল এবং তারা হয়ত ঐ ধরনের জিনিস একটিই তৈরি করেছিল।

এ ধরনের জিনিসপত্র সংগ্রহে কী লাভ?

প্রাচীন জিনিসপত্র সংগ্রহের দ্বারা শুধু যে আপনার বাড়ির আবহ সম্পূর্ণ অনন্য হয়ে উঠবে তা-ই নয় বরং এটি ভবিষ্যতের জন্য মূল্যবান জিনিস সংগ্রহের একটি উপায়ও বটে। আপনার সংগ্রহে থাকা প্রাচীন জিনিসপত্রর ধরণ, তাদের নির্মাণ সাল এবং সেগুলোর প্রাপ্যতা অনুযায়ী দামে প্রাচীন জিনিসপত্র বিক্রয় করে আয় উপার্জনের পথ বের করে নিতে পারেন। অনেকেই পুরাতনকালের জিনিস সংগ্রহে রাখতে ও সেগুলো দিয়ে ঘর সাজাতে পছন্দ করেন যাতে করে তাদের পরবর্তী প্রজন্ম টাকার বিনিময়ে সেগুলো বিক্রি না করে বরং সেগুলোর যত্নআত্তি করতে থাকে।

প্রাচীনকালের সাজসজ্জার জিনিস এবং আসবাবপত্র সংগ্রহের কারণ

প্রাচীন জিনিসপত্র সংগ্রহের অনেক কারণ রয়েছে, হতে পারে তা আপনার নিজের আগ্রহবশতঃ, কোনো স্মৃতি ধরে রাখতে অথবা আপনার পরিবারের মধ্যে প্রজন্মান্তরে পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে। বাজারে বিক্রির জন্যও প্রাচীন জিনিসপত্র সংগ্রহ করা সম্ভব এবং সেই সব ব্যক্তিদের সাথে ভাগাভাগি বা শেয়ার করা সম্ভব যারা এমনসব জিনিস সংগ্রহ করতে ও সেগুলো দিয়ে তাদের বাড়িঘর সাজাতে প্রবল আগ্রহী, যে জিনিসগুলো এখন আর গণহারে তৈরি হয় না, যেটি হয়ত ঐ একটিই মাত্র রয়েছে অথবা যেগুলো খুবই বিরল।

কীভাবে প্রাচীন জিনিসপত্রর ক্রয়বিক্রয় হয়

যে কোনো প্রত্নমূল্যসমৃদ্ধ জিনিস কেনাকাটা করার আগে আপনি নিজেই সবকিছু খতিয়ে দেখে নেবেন এবং আপনার গৃহসজ্জায় যে ধরনের জিনিস যুক্ত করতে যাচ্ছেন সেটি সম্পর্কে ধারণা নিয়ে নেবেন। আপনার বসবাসের এলাকা এবং বছরের ঠিক কোন সময়টিতে কেনাকাটা করতে বের হয়েছেন সেই বিষয়গুলো মাথায় রেখে প্রাচীন জিনিসপত্র কেনাকাটার জন্য রি-সেল দোকান, পুরাকালীন জিনিসের দোকান এবং স্থানীয় ফেলনা জিনিসের দোকান ঘুরে দেখতে পারেন। অনলাইনের কারুশিল্পী সম্প্রদায়ের মাধ্যমে, ওয়েবসাইটের মাধ্যমে, এমনকি অনলাইনের নিলাম ওয়েবসাইটগুলোর মাধ্যমে আপনি বিরল সব প্রাচীন জিনিসপত্র খুঁজে পেতে পারেন। আপনি যে কোম্পানীর সাথে লেনদেন করতে চান সেটি যদি আপনার পূর্বপরিচিত হয়ে থাকে কেবল সেক্ষেত্রেই অনলাইনে প্রাচীন জিনিসপত্র অনুসন্ধানের এই উপদেশ প্রযোজ্য হবে। তা না হলে, আপনি হয়ত বাতিল মালের অথবা দেখতে মোটেও প্রাচীন জিনিসপত্র বলে মনে হয় না এমনসব জিনিসের অর্ডার দিয়ে ফেলতে পারেন।

আপনার নিজের সংগ্রহের জিনিস বিক্রয়

আপনার যদি মনে হয় যে আপনার কাছে এমন কিছু জিনিসপত্র রয়েছে যেগুলো আপনি আর ব্যবহার করতে চান না, তবে সেগুলো বিক্রির প্রস্তুতি নেয়ার, শ্রেণিবদ্ধ তালিকাভুক্ত করার এবং সেগুলো থেকে মুনাফা করার কিছু উপায় রয়েছে। আপনার সংগ্রহে থাকা যে কোনো প্রাচীন জিনিস বিক্রির পূর্বে, তা সেগুলো আপনি কোনো দোকানেই বিক্রি করতে চান অথবা কোনো নিলামে অংশগ্রহণের মাধ্যমেই বিক্রি করতে চান না কেন, পেশাদার প্রত্নতত্ত্ববিদ দ্বারা সেগুলো দেখিয়ে নেয়া এবং মূল্যায়ন করিয়ে নেয়াটা ভীষণ জরুরি।

আপনার সংগ্রহে থাকা কোনো প্রাচীন জিনিসের মূল্য নির্ধারণের আগে সে জিনিসটির সর্বোচ্চ মূল্য পেতে কিছুটা খোঁজখবর করে নেয়া জরুরি। আপনার বাড়িতে থাকা সকল প্রাচীন জিনিসপত্র যদিও একত্রে স্থানীয় কোনো ফেলনা জিনিসের বাজারে বা দোকানে বিক্রি করে দেয়া কোনো ব্যাপার না, তবুও অনলাইনে একটি বিক্রয়কেন্দ্র খোলা সম্ভব অথবা যে সব জিনিস আপনি আর রাখতে চান না সেগুলো শ্রেণিবদ্ধ বিক্রয় তালিকায় রেখে পৃথক পৃথকভাবে অনলাইনে বিক্রি করা সম্ভব। যখনই আপনি কোনো প্রাচীন জিনিসপত্রকে শ্রেণিবদ্ধ বিক্রয় তালিকায় রাখতে চাইবেন তখন সামনে অগ্রসর হওয়ার পূর্বে আপনার উচিত হবে ঐ ধরনের অন্যান্য জিনিসের বাজারমূল্য তুলনা করে দেখা এবং আপনার নিজেরটির জন্য সঠিক মূল্য নির্ধারণ করে নেয়া। আপনার নিকটে থাকা নির্দিষ্ট ধরনের প্রাচীন জিনিসপত্র, গৃহসজ্জা সামগ্রী এবং সংগ্রহযোগ্য জিনিসটির সবচেয়ে গ্রহণযোগ্য দাম সম্পর্কে আপনার যত ভালো ধারণা থাকবে, আপনার পক্ষে এমন একজন ভালো ক্রেতা জুটে যাওয়ার সম্ভাবনা ততই বেশি হবে যিনি আপনার বিক্রয়যোগ্য জিনিসের ব্যাপারে সত্যিকার অর্থেই আগ্রহী।

প্রাচীন জিনিসপত্রের কেনাকাটা এবং কীভাবে ভালো জিনিস পাবেন

প্রাচীন জিনিসপত্র কেনাকাটা করা কেবল আনন্দের বিষয়ই নয় বরং তা আপনার বাড়ি, বাগান ও আপনার সম্পত্তির অন্যান্য অংশের সাজসজ্জার জন্য বিরল জিনিস অনুসন্ধান করার একটি পদ্ধতি। কেনাকাটার সময়, বিশেষ করে, যখন আপনি সত্যিকারের কোনো প্রাচীন জিনিসপত্র পেতে চান তখন, সে জিনিসের নির্মাণ সাল, বয়স এবং নির্মাণকারী সম্পর্কে খোঁজখবর নিলে আপনি জিনিসটি কিনে জেতার ব্যাপারে নিশ্চিত হতে পারবেন। আপনার আগ্রহের কোনো প্রাচীন জিনিসপত্র ক্রয়ের সময় সেটির গায়ে লেখা সময় ও তারিখ দেখে নিন। এটির উৎস এবং এটিকে কখন তৈরি করা হয়েছিল তা জানাটাও জরুরি, বিশেষ করে, আপনি যদি সবধরনের প্রাচীন জিনিসপত্রের সংগ্রাহক হয়ে থাকেন।

বাড়িতে ব্যবহারের জন্য কোনো প্রাচীন জিনিস ক্রয়ের জন্য অর্থব্যয় করার আগে সেটিতে কোনো ফুটাফাটা বা অন্যধরনের কোনো ক্ষয়ক্ষতি রয়েছে কি না তা ভালোভাবে দেখে নিন যাতে তা আপনার রুচিবোধের সাথে মেলে এবং সর্বোপরি আপনার ব্যয়িত অর্থের উপযুক্ত হয়। আপনার আগ্রহের জিনিসপত্রগুলো আপনি ফেলনা জিনিসের বাজার থেকে, শহরের বিভিন্ন মেলা থেকে এমনকি আপনি চাইলে ঘরে বসেও ক্রয় করতে পারেন। আপনি যদি ভীড় এড়াতে চান অথবা আপনি শুধুই আপনার বাড়ির জন্য হাজার হাজার প্রাচীন জিনিসপত্র ও গৃহসজ্জার সামগ্রী খুঁজে দেখতে চান তবে অনলাইনে কেনাকাটা করাই হবে আপনার জন্য উত্তম পন্থা।

প্রাচীন জিনিসপত্র কেনাকাটা করা এবং কীভাবে তা আবার নিজে নিজেই বিক্রয়ের ব্যবস্থা করা যায় সে সম্পর্কে আপনি যত বেশি জানবেন, আপনি এ ব্যবসা থেকে তত বেশি মুনাফা করতে পারবেন। পাশাপাশি আপনার নিজগৃহের জন্য বিরল এবং অসাধারণ সব প্রাচীন জিনিসপত্র সংগ্রহ করতে পারবেন। আপনার গৃহের জন্য যখন কোনো প্রাচীন জিনিসপত্র ক্রয় ও বিক্রয় শুরু করতে চাইবেন তখন আপনার পক্ষে আত্মবিশ্বাসী হয়ে ওঠার একটি উপায় হলো বিভিন্ন ধরনের প্রাচীন জিনিসের শৈলী, বিরলতা এবং গুরুত্বের তুলনা করতে শেখার জন্য একটু সময় ব্যয় করা।

Comments

comments