আনবক্স করুন নতুন স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৮

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৮ এবং এস৮+ স্যামসাং কোম্পানির সবচেয়ে লেটেস্ট স্মার্টফোন এবং বর্তমানে তাদের বহুল প্রতিক্ষীত পণ্য। একদিকে যখন তাদের ভারপ্রাপ্ত চীফকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং নোট ৭ ফিয়াস্কো তাদের ব্র্যান্ড ইমেজকে নষ্ট করেছে, এমন একটি সংকটপূর্ণ পরিস্থিতিতে এস৮ এবং এস৮+ কোম্পানির মুক্তির সবচেয়ে বড় সিড়ি হয়ে উঠতে পারে।

screen

এস৮ এবং এস৮+ স্যামসাং-এর সফলতা এবং ক্রমবিকাশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। স্যামসাং এমন একটি সুত্র ব্যবহার করেছে যার কর্মক্ষমতা সম্পর্কে তারা অবগত, এবং তার সাথে এমন আরও কিছু সংযোজন আনা হয়েছে যা ব্যবহারকারীদের তুষ্ট করবে। সফল ফিচার যেমন পানি প্রতিরোধ, বর্ধমান স্টোরেজ, দ্রুত এবং তারবিহীন চার্জ করার ব্যবস্থা এবং স্যামসাং পে। এই ফোনের মূল আকর্ষণ হল এর বিশাল ডিসপ্লে। স্যামসাং এর মতে এটা ইনফিনিটি ডিসপ্লে কেননা ডিসপ্লেটি ফোনের প্রস্থ জুড়ে বিস্তৃত এবং এর কিনারগুলোতে যে কার্ভ ব্যবহার করা হয়েছে তা সত্যিই ফোন দুটোকে দৃষ্টিনন্দন লুক দিয়েছে। এই ডিজাইনটির সুবিধা হল এই ফোনগুলো তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী ফোনগুলোর চেয়ে আকারেও ছোট কিন্তু ব্যবহারের ক্ষেত্রে তাদের পরিধি অনেক বেশি। এস৮/এস৮+ প্রথম ডিভাইস যার ভেতরে কোয়ালকম-এর লেটেস্ট স্ন্যাপড্রাগন ৮৩৫ ব্যবহার করা হয়েছে। স্যামসাং ইতোমধ্যেই এ ধরণের অনেক প্রসেসর অর্ডার করে ফেলেছে; যেখানে এলজি-এর জি৬ এবং এইচটিসি ইউ আল্ট্রা-দের পুরনো প্রসেসরের উপর নির্ভর করতে হবে যেগুলো ধীরগতির এবং প্রচুর চার্জ খরচ করে। স্যামসাং-এর ফোনগুলোকে অত্যন্ত ব্যবহার উপযোগী আকার প্রদান করা হয়েছে, যার কারনে আগের এস৭ এজের চেয়ে এর গ্রিপ আরও বেশি আরামদায়ক।

camera

অন্যদিকে স্যামসাং অন্যান্য মূল ফিচারগুলো নিয়ে বিতর্ক রয়েই গেছে, যেগুলো তারা অল্পে আপোষ করে যাচ্ছে। এর মধ্যে একটি হচ্ছে এর ক্যামেরা যার দিকে অনেকেই লক্ষ্য করবে। এস৮/এস৮+-এ এমন একটি ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে যা বলতে গেলে গত বছরের এস৭-এর ক্যামেরার মতই। এস৭-এর ক্যামেরা নিঃসন্দেহে অসাধারণ কিন্তু ২০১৬ সালের শেষ নাগাদ গুগল পিক্সেল এস৮ এবং এস৭-কে পিছে ফেলে দিয়ে সেরা ক্যামেরার পুরস্কার অর্জন করে। স্যামসাং দাবি করছে তারা এই ক্যামেরাকে অনেক দ্রুত গতির এবং লো-লাইটে ভাল ছবি তোলার জন্য উপযোগী করে তৈরি করেছে। ইমেজ কোয়ালিটি আগের চেয়ে আরও কিছুটা উন্নত করা সম্ভব কিন্তু তাতে যে খুব বেশি পার্থক্য সৃষ্টি হবে তাও নয়।

আরেকটি যে দিক উন্নত হওয়া প্রয়োজন তা হল এর ব্যাটারি লাইফ। এই স্মার্টফোনগুলোর ব্যাটারী-ক্যাপাসিটি এদের আগের ফোনগুলোর ব্যাটারীর চেয়ে আরও কম এবং স্যামসাং এদের ব্যাটারী লাইফ সম্পর্কে কিছু বলেনি। স্ন্যাপড্রাগন ৮৩৫ হয়তবা এসওসি-এর চেয়ে বেশি কার্যকরী কিন্তু আমার মনে হয় আরও বেশি পিক্সেল-ঘনত্বের বড় ডিসপ্লেগুলোর ছোট ডিসপ্লের ফোনের চেয়ে বেশি চার্জ প্রয়োজন হবে।

DeX 2

মাইক্রোসফট-এর পদচিহ্ন অনুসরণ করে স্যামসাংও এমন একটি ফিচার সংযোজন করেছে যা ব্যবহারকারীকে একটি ডকের সাথে যুক্ত করে ডেস্কটপ-অ্যান্ড্রয়েড অভিজ্ঞতা প্রদান করবে। একে বলা হয় ডেক্স এবং এর কার্যপ্রণালী অনেকটা রেমিক্সওএস-এর মতই – এই সার্ভিসটি আপনাকে কম্পিউটারের উইন্ডোজ ইন্টারফেসের সাথে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপের সংযোজন ঘটিয়ে ব্যবহার করতে সহায়তা করবে। এখানে প্রশ্ন থেকে যায় কেউ আদৌ ডেক্স ব্যবহার করবে কি না।

bixby

সবশেষে বিক্সবি নিয়ে কথা বলা যাক। বিক্সবি স্যামসাং-এর লেটেস্ট এআই অ্যাসিসট্যান্ট। এটি একটি স্মার্ট কনটেক্সট সচেতন সার্ভিস যা আপনার কণ্ঠস্বরের মাধ্যমে আপনার ফোনকে নিয়ন্ত্রণ করে। এটি ফোনের ক্যামেরা দিয়ে বিভিন্ন অবজেক্টকে সনাক্ত করে বলতে পারবে যে সেগুলো কোথায় কিনতে পাওয়া যাবে। এগুলো তাত্ত্বিকভাবে শুনে ভালই মনে হচ্ছে কিন্তু স্যামসাং বিক্সবিকে সেভাবে উপস্থাপন করেনি বিধায় এ সম্পর্কে অনেক সংশয় থেকে যাচ্ছে। স্যামসাং বিক্সবি সরাসরি চালু করার জন্য একটি পৃথক বাটন সংযোজন করেছে যার মাধ্যমে আমরা এটুকু আশ্বস্ত হতে পারি যে তারা এই সার্ভিসটির পেছনে বেশ ভাল ইনভেস্টমেন্ট করতে ইচ্ছুক। আরেকটি কৌতূহলী ব্যাপার হল যে আপনি এস৮ বা এস৮+-এর সাথে গুগল অ্যাসিসট্যান্ট-ও পাচ্ছেন, সুতরাং মজার বিষয় হবে এটা দেখা যে কেউ বহুল প্রশংসিত গুগল অ্যাসিসট্যান্টের পরিবর্তে বিক্সবি ব্যবহার করবে কিনা।

screen 2

দেখা যাচ্ছে গ্যালাক্সি এস৮ বা এস৮+ ঠিক তেমনই, যেমনটা আমরা চাই। যখন অনেকেই স্যামসাং-এর আপোষের দিকগুলো নিয়ে বিষণ্ণ থাকবেন তখন বেশিরভাগ ব্যবহারকারীরাই ওদের নতুন প্রচেষ্টা দেখে খুশি হবেন। এস৭ ব্যবহারকারীরা হয়ত তাদেরফোন আপগ্রেড করার ব্যাপারে ততটা উদ্বুদ্ধ হবেন না তবে এই নতুন ফ্ল্যাগশিপ ফোনগুলো এস৭ কিংবা পুরোনো মডেলের ফোন ব্যবহারকারীদের জন্য হবে চমৎকার অপশন। এস৮-এর প্রারম্ভিক মূল্য ৭৫০$ এবং এস৮+ -এর প্রারম্ভিক মূল্য ৮৫০$। ফোনগুলো পাওয়া যাবে এপ্রিলের শেষ কিংবা মে মাসের শুরুতে। বাংলাদেশে ফোনগুলোর মূল্য হবে এস৭-এর মতই, প্রায় ৭০,০০০ টাকা।

স্পেসিফিকেশন

  • কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৩৫ সিপিইউ অক্টা কোর (৪ * ২.৩৫ গিগাহার্টজ ক্রায়ো ও ৪ * ১.৯ গিগাহার্টজ ক্রায়ো) – ইউএস মডেল অক্টা কোর (৪ * ২.৩ গিগাহার্টজ ও ৪ * ১.৭ গিগাহার্টজ) – আন্তর্জাতিক
  • আড্রেনো ৫৪০ জিপিইউ
  • ৪ গিগাবাইট র‍্যাম, ৬৪ গিগাবাইট বিল্ট-ইন স্টোরেজ, মাইক্রো-এসডি এক্সপ্যানশন ২৫৬ গিগাবাইট পর্যন্ত বর্ধমান
  • ৫.৮ ইঞ্চি ডব্লিউকিউএইচডি (২৯৬০ * ১৪৪০) সুপার অ্যামোলেড ডিসপ্লে (এস৮+-এর জন্য ৬.২ ইঞ্চি) করনিং গরিলা গ্লাস ৫ সহ
  • প্রধান ক্যামেরা ১২ মেগাপিক্সেল ওআইএস সহ এফ/১.৭, ১.৪ মাইক্রন পিক্সেল সাইজ
  • অটো ফোকাস সহ ফ্রন্ট ক্যামেরা ৮ মেগাপিক্সেল এফ/১.৭
  • ৩,০০০ এমএএইচ ব্যাটারী (এস৮) এবং ৩,৫০০ এমএএইচ ব্যাটারী (এস৮+)
  • অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ নোগাট
  • ইউএসবি ৩.১ টাইপ সি
  • আইরিস স্ক্যানার, ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার, ব্লুটুথ ৫.০, আইপি৬৮ ধুলো এবং পানি প্রতিরোধী

Comments

comments